জানুয়ারি ২৪, ২০২২ ০২:৫৭ পূর্বাহ্ন



জানুয়ারী / ২৪ / ২০২২


সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

আপডেটের : জানুয়ারী / ২৪ / ২০২২

শাল্লায় হিন্দুদের ঘরবাড়িতে হামলার ঘটনায় ৪৯ জন জেল হাজতে

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁওয়ে হিন্দু ধর্মালম্বীতের বাড়িঘর ভাংচুর ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় জড়িত ৪৯ জনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। আজ রোববার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে সুনামগঞ্জের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুর রহিম এই আদেশ দেন।

কোর্ট পুলিশ সূত্রে জানা যায়,  সম্প্রতি এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. তোফাজ্জল হোসেন এজাহার নাম থাকা আসামি ছাড়া আরও ৪৯ জনের নাম উল্লেখ করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এই আসামিরা আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। জামিন শুনানি শেষে আদালতের বিচারক চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুর রহিম ৪৯ জনকেই জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে সুনামগঞ্জ কোর্ট পুলিশের ইন্সপেক্টর সাইফুল আলম বলেন, আজকে দুপুরে ৪৯ জন ওই মামলায় জামিন নিতে আসলে বিচারক তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। 

উল্লেখ্য, শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাশের ফেসবুক আইডি থেকে হেফাজত ইসলামের সাবেক নেতা মাওলানা. মামুনুল হককে সমালোচনা করে গত বছরের ১৬ মার্চ ফেসবুকে কথিত স্ট্যাটাসের প্রতিক্রিয়ায় দলটির সমর্থকরা পরদিন নোয়াগাঁও গ্রামের সংখ্যালঘুদের ৮৮ বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও ভাংচুর করে। এ সময় গ্রামের ৫ টি মন্দিরও ভাংচুর করা হয় । এ ঘটনায় তিনটি মামলা হয়। মামলাগুলো তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ। তিন মামলায় গ্রেপ্তার ও আদালতে স্বেচ্ছায় হাজির হওয়াসহ ১১৩ জন আইনের আওতায় এসেছেন। হামলা, লুটপাট ও ভাংচুরের মামলার আসামি ইউপি সদস্য শহীদুল ইসলাম স্বাধীন মিয়াসহ অধিকাংশ আসামি আদালত থেকে ইতিমধ্যে জামিন পেয়েছেন।

আইন-আদালত