জুলাই ২৫, ২০২১ ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন



জুলাই / ২৫ / ২০২১


গোয়াইনঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি

আপডেটের : জুলাই / ২৫ / ২০২১

গোয়াইনঘাটে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে দুই গ্রাম মুখোমুখি

তুচ্ছ একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপজেলার পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নে গোয়াইন গ্রাম এবং লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের সতি গ্রামের বাসিন্দাদের মাঝে সংঘর্ষের আশংকা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

রোববার (২৭ জুন) সকালে উপজেলার গোয়াইন গ্রামের পশ্চিম মসজিদ সংলগ্ন মাঠে গোয়াইন ও সতি গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের এই প্রস্তুতি চলছিল।

সেখানে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে বিরাজ করছে উত্তেজনা। এক পর্যায় মুখোমুখি অবস্থান ছিল দু'পক্ষের। পরে অবশ্য ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

জানা যায়, গত শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলার লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের সতি গ্রামের মনির উদ্দিনের ছেলে রিকশা চালক হারুন রশিদকে গোয়াইন বাজারে পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের গোয়াইন গ্রামের এক লোক মারধর করেন।

এর জের ধরে আজ রোববার সকালে সতি গ্রামের কয়েকশ’ লোক দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে গোয়াইন গ্রামের পশ্চিম মসজিদ সংলগ্ন মাঠে অবস্থান নেয়। খবর পেয়ে গোয়াইন গ্রামের শতাধিক লোকজনও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ওই মাঠে যান। উভয় পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিলে সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়।

ঘটনার খবর পেয়ে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে প্রথমে উভয় পক্ষকে নিজ নিজ গ্রামে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানায়। কিন্তু তাতে কাজ না হওয়ায় পুলিশ ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

পশ্চিম জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুঠোফোনে বলেন, তুচ্ছ একটি ঘটনা নিয়ে দুটি ইউনিয়নের মধ্যে এরকম ঘটনা। আজ সন্ধ্যার পর বিষয়টি সমাধানের লক্ষে বসার একটি সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুব আহমদ জানান, আমি সিলেটে ছিলাম। পরে এসে ঘটনাটি শুনেছি। বিষয়টির সমাধানের লক্ষে আমরা উভয় ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে সন্ধ্যার পর বসার একটি আয়োজন করেছি। আশা করছি সমস্যাটি সমাধান হবে।

এ ব্যাপারে গোয়াইনঘাট সার্কেলের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) প্রবাস কুমার সিংহ বলেন, একটি টমটমের চড়া নিয়ে তুচ্ছ একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোয়াইনঘাটের দুই গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটতে যাচ্ছিল। আমরা খবর পেয়ে থানার একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি এবং সংঘর্ষ রোধ করতে সক্ষম হই। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশকে ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়তে হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

সিলেট