জগন্নাথপুরে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায়-

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে এসে দেখা করতে না পারায় অভিমানে গলায় রশি দিয়ে যুবকের আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে।
এ ঘটনায় জগন্নাথপুর থানা পুলিশ জয়দা গ্রামের মৃত সানুর মিয়ার মেয়ে প্রেমিকা শারমীন বেগম (১৯) ও তাঁর চাচা শাহীনুর মিয়া (৩৮) কে সন্দেহজনকভাবে গ্রেপ্তার করে। শুক্রবার তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়। আর তরুণের লাশ ময়না তদন্তের পর পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, কোনারাই গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে সিদ্দিক আলীর সাথে জয়দা গ্রামের মৃত সানুর মিয়ার মেয়ে শারমীন বেগম (১৯) এর প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। এক পর্যায়ে প্রেমিকার পরিবারের লোকজন বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় প্রেমিক যুবক প্রেমিকার সঙ্গে বৃহস্পতিবার বিকেলে দেখা করতে তাঁর বাড়িতে আসে। সেখানে এসে দেখা করতে না পেরে গ্রামের এক যুক্তরাজ্য প্রবাসীর পরিত্যক্ত বাড়িতে গাছের সাথে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলে পড়ে। পরে লাশ দেখে এলাকাবাসী জগন্নাথপুর থানা পুলিশ কে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।
জগন্নাথপুর থানার উপ-পরিদর্শক রাজিব রহমান বলেন, প্রেমঘটিত কারণে তরুণ আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে । আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের পর আজ শুক্রবার বিকেলে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেছি। এঘটনায় সন্দেহজনকভাবে আটককৃত দুইজন কে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন