নিয়ম মেনেই শাবির এক কিলো সড়কে গাছ কাটা হচ্ছে: উপাচার্য

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ।। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) মূল ফটক পুনর্নির্মাণের জন্য নিয়ম মেনে গাছ কাটা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলছেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল গেট পুন:র্নির্মাণের জন্য বন বিভাগের অনুমতি এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র দিয়ে গাছ কাটার সুপারিশ করা হয়েছে। আর কাটা গাছের বিপরীতে ক্যাম্পাসে প্রায় একশটি বনজ, ফলজ ও ঔষধি গাছ লাগানোর প্রক্রিয়া চলছে।’

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শাবির প্রধান ফটকের এক কিলো সড়কের দুইপাশের কয়েকটি গাছ কাটার চিত্র ভাইরাল হয়। এ নিয়ে অনেকে বিরূপ মন্তব্যও করেন। এ বিষয়টি শাবি কর্তৃপক্ষের নজরে এলে বিভ্রান্তি নিরসনের জন্যেই গাছ কাটা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরে উপাচার্য।

তিনি বলেন, ‘আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান মেইন গেটটি সওজ’র জায়গায় অবস্থিত। তাই যেকোনো সময় সওজের প্রয়োজনে বর্তমান গেটটি ভেঙে ফেলতে পারে। এতে আমাদের প্রস্তাবিত গেটটি বর্তমান অবস্থান থেকে কিছুটা ভিতরে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব জমিতে নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছে। এজন্য কিছু গাছ আমাদের বাধ্যতামূলকভাবে কাটতে হচ্ছে। এক কিলো রোডের সৌন্দর্যহানি কিংবা বৃক্ষনিধন আমাদের কাম্য নয়।’

ক্যাম্পাসে বৃক্ষরোপণের কথা উল্লেখ করে উপাচার্য বলেন, বিগত তিন বছরে ক্যাম্পাসে ১৪ হাজার গাছের চারা লাগানো হয়েছে। আগামী জুন-জুলাই মাসের মধ্যে আরও ১০ হাজার গাছ লাগানো হবে।

তাছাড়া এক কিলো রাস্তার দু’পাশে লেকগুলোর সৌন্দর্য্য বর্ধনের কাজও হাতে নেওয়া হয়েছে। রাস্তাটির দু’ধারে ফুটপাথ ও সাইকেলের রাস্তা নির্মাণের কাজ অচিরেই শুরু হবে।

তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার ও সংশ্লিষ্ট সকলকে বিচলিত না হয়ে অনুগ্রহপূর্বক অপেক্ষা করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। আশা করি গেটটির নির্মাণকাজ শেষ হলে এক কিলো রোডের সৌন্দর্য বর্তমানের তুলনায় কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে। দৃষ্টিনন্দন এ গেটের অনন্য নির্মাণশৈলীর জন্য একটি দর্শনীয় স্থাপনায়ও পরিণত হবে।

শেয়ার করুন