উন্নয়নের প্রাণপুরুষ স্পিকার হুমায়ুন রশিদ চৌধুরী

আ স ম হোসাইনঃ’ এই কয়েক মাস তত্ত্বাবধায়ক সরকার থাকবে , মন্ত্রীরা ক্ষমতায় থাকবেন না , মন্ত্রণালয় গুলোতে তদবিরের ভিড় হবে না, এ সুযোগে আমলাদের কাছ থেকে সহজেই কাজ আদায় করা যাবে, তাই সিলেটের আর কি কি কাজ বাকি আছে , তাড়াতাড়ি লিস্ট করো , অন্তত শুরু করে যাই, আমি না থাকলে ও পরে যারা আসবে তারা কন্টিনিউ করতে পারবে ” মৃত্যর কিছুদিন আগে ২০০১ সালের জুন মাসে ব্যক্তিগত কর্মকর্তাদের এমনটাই বলে ছিলেন উন্নয়নের প্রাণপুরুষ স্পিকার হুমায়ুন রশিদ চৌধুরী I কিন্তু কয়েকদিন পরই সব কিছু তছনছ হয়ে গেল , ১০ জুলাই আকস্মিকভাবে পরপারে পাড়ি দিলেন আধুনিক সিলেটের স্বপ্ন দ্রষ্টা , সিলেট সদর -কোম্পানীগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের স্পিকার হুমায়ুন রশিদ চৌধুরী , এ যেন ছিল বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতো I
সাধারণত: মানুষ স্বপ্ন দেখে নিজের সন্তান -সন্ততি ও পরিবার- পরিজন নিয়ে I নতুন- নতুন ব্যবসা -বাণিজ্য গড়ে তুলে, একটার পর একটা কল -কারখানা স্থাপনের পরিকল্পনা করে – কিন্তু না, তার সব জল্পনা -কল্পনা ছিল কেবল দেশকে ঘিরে , জন্মভূমি সিলেটকে নিয়ে I মনে হতো তিনি যেন সিলেটের উন্নয়নের ব্যাপারে কারো কাছ থেকে দায়িত্ব প্রাপ্ত অথবা কারো কাছে দায়বদ্ধ I ধ্যানে-মনে সারাক্ষন থাকতো সিলেটের উন্নয়ন ভাবনা এবং দেশের কল্যাণ ও জনগণের মঙ্গলের চিন্তা I সিলেটের আর কোন – কোন ন্যায্য দাবি অপূর্ণ রয়ে গেলো, কেমনে দ্রুততার সাথে উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা যায় – এ সব নিয়েই ছিল তার পেরেশানি I
একটি বনেদি জমিদার ও রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম নিয়ে দেশে ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গুরুত্বপৃর্ণ দায়িত্ব পালনকারী এ কিংবদন্তি ব্যাক্তিত্ব যেমন ছিলেন একজন দেশপ্রেমিক কূটনৈতিক মুক্তিযোদ্ধা তেমনি ছিলেন সিলেটবাসীর আপনজন , অজপাড়া গায়ের সাধারণ মানুষের ভরসাস্থল , সব শ্রেণী -পেশার মানুষের জন্য তার দ্বার ছিল উন্মুক্ত I এমন একজন কৃতি পুরুষের মৃত্যু বার্ষিকী নীরবে -নিবৃতে চলে যায় কোনো ধরণের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়া ! কে স্মরণ করবে তাকে ? শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়তো কথা বলতে পারে না , কথা বলতে পারে না সিলেট আধুনিক রেলস্টেশন , দ্বিতীয় শাহজালাল সেতু , সালুটিকর সেতু , বাদাঘাট সেতু , কাটাখাল ব্রিজ, সিলেটের শত শত রাস্তা ঘাটও বিদ্যাপীঠ I বাকশক্তি শক্তি থাকলে তারা চিৎকার দিয়ে বলতো জনক তুমি আজো বেঁচে আছো আমাদের মাঝে শির উঁচু করে I
ব্যাক্তিগতভাবে দুআ -দুরুদ করা ছাড়া আমাদের আর কি ই বা করার আছে I তবে বিশ্বাস করি
আমরা যথাযথভাবে মূল্যায়ন না করলেও যার আশ্রয়ে তিনি আছেন, সেই রাব্বুল আলামিন তো জানেন তার মহৎ কর্ম গুলো, তিনি যেন তাকে উত্তম প্রতিদান দেন , ভুল ত্রূটি ক্ষমা করে যত্নে রাখেন I

  1. আ স ম হোসাইনঃ মরহুম হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর সাবেক ব্যক্তিগত কর্মকর্তা।
শেয়ার করুন