আলিয়া মাদরাসা মাঠে পশুর হাটের ইজারা বাতিলের দাবি

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ।। করোনা সংক্রমণ রোধে উন্মুক্ত স্থানে কোরবানির পশুর হাট বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন। জেলা প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে কাজিরবাজার পশুর হাটের বাইরে তিনটি মাঠে পশুর হাটের ইজারা প্রদানের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে সিসিক। এই তিনটি স্থান হচ্ছে- সিলেট এমসি কলেজ মাঠ, সিলেট সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠ ও দক্ষিণ সুরমার পারাইরচকস্থ কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনাল।

তবে অন্য দুইটি স্থান নিয়ে কোনো কথা না উঠলেও সিলেট আলিয়া মাদরাসা মাঠে পশুর হাট বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে উঠেছে আপত্তি। আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে সিলেট সরকারী আলিয়া মাদরাসা মাঠে গরু ছাগলের হাটের ইজারা বাতিলের দাবী জানিয়েছেন আনজুমানে খেদমতে কুরআন সিলেটের নেতৃবৃন্দ। আলিয়া মাদরাসা মাঠের পবিত্রতা ও দীর্ঘদিনের ঐতিহ্য রক্ষার দাবি জানান তারা।

এক বিবৃতিতে আনজুমানে খেদমতে কুরআন সিলেট-এর সভাপতি প্রফেসর সৈয়দ মাওলানা ইকরামুল হক ও সেক্রেটারী হাফিজ মাওলানা মিফতাহুদ্দীন আহমদ বলেন- ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানীর পশু বিক্রির জন্য সিলেট জেলা প্রশাসন ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে নগরীর বাইরে পশুর হাট বসানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আমরা ইতোমধ্যে জানতে পেরেছি ঐতিহ্যবাহী সিলেট সরকারী আলিয়া মাদরাসা ময়দানকে পশুর হাট বসানোর জন্য ইজারা দেয়া হয়েছে। এমন সংবাদে আমরা বিস্মিত হয়েছি। কারণ সিলেট সরকারী আলিয়া মাদরাসা মাঠের সাথে আধ্যাত্মিক রাজধানী খ্যাত সিলেটের অনেক ঐতিহ্য জড়িয়ে আছে। আলিয়া মাদরাসা মাঠে প্রতিবছর একাধিক দ্বীনি সংগঠনের উদ্যোগে তাফসীরুল কুরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এই ময়দানে সিকি শতাব্দীর চেয়েও বেশী সময় ধরে আনজুমানে খেদমতে কুরআনের উদ্যোগে বছরের দুটি ঈদের জামায়াতও অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এছাড়াও সিলেটের শীর্ষস্থানীয় ওলামায়ে কেরাম ও জাতীয় পর্যায়ের রাজনীতিবিদদের ইন্তেকাল পরবর্তী জানাযার নামাজও এই মাঠে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এই মাঠে দেশের বড় বড় রাজনৈতিক দলের বিশাল মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এদিক থেকে এই মাঠে গরুর হাট বসানো সিলেটের ঐতিহ্য পরিপন্থী।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য যে করোনা মহামারী থেকে সিলেটবাসীর সুরক্ষার স্বার্থে আলিয়া মাঠকে পশুর হাট হিসেবে বেছে নেয়া হয়েছে। অথচ এই মাঠের পাশেই অবস্থিত সিলেটের একমাত্র সরকারী করোনা আইসোলেশন সেন্টার শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল। এদিক থেকে মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর। এছাড়া এর পাশেই সিলেটের বেশ কয়েকটি বেসরকারী হাসপাতাল এবং চিকিৎসকদের চেম্বারও রয়েছে। শুধু তাই নয়, সিলেট বিভাগের একমাত্র বৃহৎ সরকারী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ওসমানী মেডিকেল কলেজে যেতে এই রাস্তাটি সবচেয়ে বেশী ব্যবহৃত হয়।

তারা আরো বলেন, আলিয়া মাদরাসা ময়দানের উত্তরে হযরত শাহজালাল (র.) দরগা মসজিদ ও মাদ্রাসা এবং আবাসিক এলাকা রয়েছে। ময়দানের পশ্চিমে দুটি ক্লিনিক, ওসমানী হাসপাতালের ছাত্রাবাস ও ডাক্তার কলোনী রয়েছে। এর পুর্ব দিকে ঐতিহ্যবাহী আলিয়া মাদ্রাসা ক্যাম্পাস এবং হোষ্টেল রয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে মাদ্রাসার ভিতরে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত জন্য এস এম পির পুলিশ সদস্যগণ অবস্থান করছেন। এমন জনগুরুত্বপূর্ণ একটি ময়দানে কোরবানীর পশুর হাট বসানো কোন অবস্থাতেই ঠিক হবেনা বলে আমরা মনে করি। আলিয়া মাদরাসা ময়দানের ঐতিহ্য ও পারিপাশির্^ক পরিবেশের কথা চিন্তা করে অবিলম্বে আলিয়া মাদরাসা ময়দানে পশুর হাট বসানোর লিজ বাতিল করার জন্য সিলেটের জেলা প্রশাসন ও সিলেট সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।

শেয়ার করুন