কানাইঘাটে লেবুতে লাভবান চাষিরা

আলা উদ্দিন, কানাইঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি ।। সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তী লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়ন। উচুঁ-নিচু টিলা আর সমতল ভূমি। সবখানেই বড় বড় লেবুর বাগান। বাগানে সারি সারি লেবু গাছের সবুজ পাতার ফাঁকে ধরেছে থোকা থোকা লেবু। এই লেবুতেই সফলতা পেয়েছেন চাষিরা।

কৃষি বিভাগ বলছে, বর্তমানে এ ইউনিয়নের ১০ হেক্টর জমিতে ছোট-বড় লেবু বাগান রয়েছে। এই ইউনিয়নের মাটি ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় লেবুর বাম্পার ফলন হয়েছে। বড় বড় বাগানে বাণিজ্যিকভাবে কাগজি, চায়না, জারা, পাতি ও কাটা লেবু চাষ হচ্ছে। চাষিরা বাণিজ্যিকভাবে লেবু চাষ করে ব্যাপক লাভবান হচ্ছেন। আর এ সফলতা দেখে নতুন করে লেবুর বাগান করতে আগ্রহী হচ্ছেন অন্যরাও। লেবু চাষে কৃষকদের সব ধরণের সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে বলেও দাবি করেছে কৃষি বিভাগ।

সুরইঘাট বাজারের পাশেই পাঁচ বিঘা জমিতে লেবু বাগান করেছেন শাহরিয়ার মাহমুদ। প্রায় তিন বছর হয়েছে এ বাগানের বয়স। তিনি বলেন, লেবু বাগানটি মূলত তার পারিবারিক বাগান। তিনি বাড়িতে আসলে বাগানেই সময় দেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তারাও তাদের নানা পরামর্শ দিয়ে থাকেন। পরামর্শ নিয়েই তারা বাগানের পরিচর্যা করেন। প্রতি সিজনে লেবু বিক্রি করে দেড়-দুই লাখ টাকা আয় হয় বলেও জানালেন তিনি।

চাষিরা জানান, লেবুর ফলন ভালো হয়েছে। চাহিদাও ভালো। বিক্রি করে ভালো লাভবান হওয়া যায়। বর্তমানে পাইকারি বাজারে আকারভেদে প্রতি পিস লেবু ৪ থেকে ৮টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা এ এম ওমর ফয়সল জানান, টিলা এলাকা হওয়ার কারণে এ ইউনিয়নে লেবু জাতীয় সাইট্রাস ফলের ফলন ভালো হয়। এছাড়া লেবু চাষে পোকা-মাকড় আক্রমণ কম হয়। সেজন্য কৃষকদের খরচও কম। এতে লাভবান বেশি হয়। কৃষি অফিস থেকে লেবু চাষিদের সব ধরনের পরামর্শ প্রদান এবং তাদের বাগানের তদারকি করা হয় বলেও জানান তিনি।

শেয়ার করুন