ভয় পাবেন না, পুলিশ আছে আপনার পাশে!

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ।। জনগণের বন্ধু পুলিশ, বিপদগ্রস্তের ভরসাস্থলও পুলিশ। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ আর অপরাধ দমনে যেমন ভুমিকা রাখছে পুলিশ; ঠিক তেমনিভাবে জনগণের বন্ধু হিসেবেও তাদের বিপদে বন্ধু হয়ে ছুটে আসছে এ বাহিনীর সদস্যরা।

মাঝে মধ্যে এ পুলিশই হয় খবরের শিরোনাম। কখনও হয় ভালো খবরের আবার কখনও খারাপ খবরের। তবে পুলিশের বদনামই বেশি ছড়ায়। ভালোর মধ্যে খারাপও রয়েছে। এমনিভাবে জনগণের ভরসাস্থল এ বাহিনীতে কতিপয় খারাপ সদস্যও রয়েছে; যাদের কারণে পুরো পুলিশ বাহিনীকে খারাপের চোখে দেখত সাধারণ মানুষ। তবে এখন আর সেই দিন নেই।

পুলিশের মধ্যে বেড়েছে সুশাসন আর জবাবদিহিতা; ফলে তারা আস্থা অর্জনও করতে শুরু করেছে। বছরের সব ঋতুতেই দিন কিংবা রাত জনগণের নিরাপত্তা রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছেন এ বাহিনীর সদস্যরা। এক্ষেত্রে ঈদ-পূজা পার্বণের আনন্দকেও বিসর্জন দেন তারা। আর কাজে রয়েছে ঝুঁকিও।

প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধেও মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেছে পুলিশ। প্রতিটি থানার পক্ষ থেকে মাইকিং করে সতর্ক থাকার জন্য জনসাধারণকে আহ্বানও জানানো হচ্ছে। পাশাপাশি সরকারের ঘোষিত স্বাস্থ্যবার্তা মেনে চলার অনুরোধও করা হচ্ছে।

রোববার নভেল করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান যুক্তরাজ্য প্রবাসী এক মহিলা। ৬১ বছর বয়সী এ মহিলা গত ২০ মার্চ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

এ মহিলার মরদেহ দাফনের সব কাজ সম্পাদক করেছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। এসময় সেখানে সিলেট মহানগর পুলিশের সদস্যরাও দায়িত্ব পালন করেছেন। দুপুরে নগরের মানিকপীর (রহ.) সিটি গোরস্থানে দাফন কাজ চলাকালের একটি ছবি প্রকাশ করা হয়েছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ফেসবুক পেজে। একই সাথে নগরবাসীকে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শও প্রদান করা হয়েছে।

বড় এ স্ট্যাটাসের শিরোনাম দেওয়া হয়েছে- ‘ভয় পাবেন না, কেউ না থাকলেও আমরা আছি আপনার পাশে’

সিলেটেরসকাল পাঠকদের জন্য স্ট্যাটাসটি হুবহু প্রকাশ করা হলো-

অনেক ক্ষেত্রে ক্রাইসিস মুহূর্তে আপনজনও কাছে থাকেনা, পরিবারের লোকজনও ঝুঁকি নেননা। কেউ যখন চরম দূর্যোগে পতিত হয় তখন এদের ছাড়া কাউকে পাশে পাওয়া যায় না। সড়ক দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে ক্ষত বিক্ষত বেওয়ারিশ লাশ যখন রাস্তায় পড়ে থাকে, এ হতভাগা বাহিনী তখন লাশের পক্ষে মামলা দায়ের করে। লাশ দাফনের ব্যবস্হা করে। নদীতে ভেসে যাওয়া বেওয়ারিশ পঁচা- গলা লাশ যখন রাস্তায় পড়ে থাকে এ হতভাগা বাহিনী তখন লাশের সুরতহাল প্রস্তুত করে, লাশের পক্ষে মামলা দায়ের করে। লাশ দাফনের ব্যবস্থা করে।
ছবিটি সিলেটের মানিক পীর কবর স্থান থেকে তোলা। লন্ডন থেকে আসা সম্মানিত এক মহিলা যিনি করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দিগ্ধ হিসেবে মৃত্যু বরন করেছেন। পাশে নেই কোন পরিবার-পরিজন ও স্বজন। অকুতোভয় সৈনিকের মতো আছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কতিপয় সদস্যরা। ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করবোনা সম্মানিত ডাক্তার বৃন্দদের।
প্রতিটি দূর্যোগের মুহূর্তে জীবন ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্য-যে বাহিনী কোনদিনও দায়িত্বপালনে পিছপা হয়নি।
অফুরন্ত ভালোবাসা, শ্রদ্ধা ও স্যালুট জানাই এই সমস্ত বীর পুলিশ সদস্যদের যারা সব সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ২৪ ঘন্টা দায়িত্ব পালন করছে।

আল্লাহ মৃতকে জান্নাতুল ফেরদৌসের সর্বোচ্চ স্থান দান করুন। আমিন।

আসুন সবাই সর্তক হই,
করোনা ( কোভিড-১৯) সর্তকতা মেনে চলি।
আতংক নয়, দরকার সচেতনতা ও সর্তকতা।
যে কোনো প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন এসএমপি,সিলেট কন্ট্রোল রুম (০৮২১-৭১৬৯৬৮, ০১৭১৩-৩৭৪৩৭৫) ২৪ ঘন্টা খোলা থাকে। অথবা ৯৯৯ নম্বরে।
আমরা আছি আপনার পাশে।
সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ, সিলেট।

 

 

শেয়ার করুন