কানাইঘাটে জনস্বার্থে খোলা থাকবে যা কিছু

কানাইঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি ।। সারা দেশের ন্যায় সিলেটের সীমান্তবর্তী কানাইঘাট উপজেলায়ও বৃহস্পতিবার থেকে সাধারণ ছুটি চলছে। সরকারি-বেসরকারি অফিস এ কদিন বন্ধ থাকবে। বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি থেকে ইতোমধ্যেই বিপনী বিতান, সুপার শপ বন্ধ ঘোষণা করেছে। গণপরিবহন চলাচলও বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক বন্ধ চলাকালীন সময়ে উপজেলায় ওষুধ, কাঁচাবাজারসহ নিত্যপণ্যের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। এছাড়া কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সিদ্ধান্ত অনুসারে স্বল্প সময়ের জন্য ব্যাঙ্ক খোলা থাকবে।

বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ বারিউল করিম খান এক লিখিত বার্তায় জানান, ‘করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সিলেটের জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশনা মতে উপজেলার প্রতিটি দোকানপাট খোলা রাখার বিষয়ে নিন্মোক্ত আদেশ জারি করা হয়েছে।’

আদেশে বলা হয় যে, প্রতিদিন সকাল ৯ টা হতে বিকাল ৫টা পর্যন্ত কাচাঁ শাকসবজি’র দোকান, মাছ ও মুরগীর দোকান, প্লেক্সিলোডের দোকান খোলা থাকিবে। এবং রাত ৮ টা পর্যন্ত মুদি ও ভুষিমালের দোকান চলবে। ঔষধের দোকান ২৪ ঘন্টা খোলা থাকলেও খাবার ও ঔষধ কেনা এবং একান্ত জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কেউ রাস্তায় ঘুরাঘুরি করিতে পারিবেন না।

অপ্রয়োজনে কাউকে রাস্তায় বা অন্য কোন স্থানে ঘুরাঘুরি অবস্থায় পাওয়া গেলে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। জরুরী কাজে নিয়োজিত মালামাল পরিবহন ও সরকারী আদেশ পালনের যানবাহন ছাড়া অন্য কোন যানবাহন পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্দ করা হয়েছে। সর্বদা ভীড় এবং জনসমাবেশ পরিহার করতে হবে।

টাকা এবং অন্যান্য কাগজ ও প্লাস্টিকের ব্যাগ ধরার পর সাবান দিয়ে হাত ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দুরত্ব ( নিজ বাসায়, বাড়িতে অবস্থান করা, প্রত্যেকের সাথে প্রত্যেকের ৩ ফুট দুরত্ব রেখে চলাচল ও অবস্থান, সর্বদা মাস্ক পরিধান করা এবং সাবান দিয়ে ভালো ভাবে হাত ধোয়া বজায় রাখতে হবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন এই আদেশ পালন করতে হবে।

এই নির্দেশনা সকল মার্কেট ও হাট-বাজারে পৌছে দিয়ে তা পালনে সকলের সহযোগীতা কামনা করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ বারিউল করিম খান।

শেয়ার করুন