জগন্নাথপুরে নদী ভাঙ্গনে ফসল রক্ষা বাঁধ হুমকির মুখে

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি ।। সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ে একটি ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ হুমকির মুখে পড়েছে। বিকল্প ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ করা না হলে উপজেলার ভেটুর হাওরের কমপক্ষে ১০ হাজার একর জমির ফসল অরক্ষিত হয়ে পড়বে। এ নিয়ে কৃষকরা দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।

এলাকাবাসী ও পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের কুশিয়ারা নদীর ডান তীরে ভাঙ্গাবাড়ি নামক এলাকায় ভেটুর হাওরের ফসল রক্ষায় একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি (পিআইসি) গঠন করা হয়। ৩৯নং এ প্রকল্পে ১৬ লাখ ৫ হাজার টাকা বরাদ্দ প্রদান করা হয়। সভাপতি হিসেবে কৃষক গোলাম রব্বানী ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পাইলগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আলেক মিয়া দায়িত্বে রয়েছেন। গত শুক্রবার পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সরেজমিনে ভাঙ্গন পরিদর্শন করে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহা পরিচালক বরাবরে একটি ডিও পত্রও দিয়েছেন।

৩৯নং প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি গোলাম রব্বানী জানান, হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ কমিটির অংশে ৩০০ ফুট এলাকা হঠাৎ করে নদী ভাঙ্গনের হুমকির কবলে পড়ে। ইতিমধ্যে আমি প্রকল্পের ৪০ শতাংশ কাজ শেষ করেছি। দ্রুত এ প্রকল্পের সীমানা পরিবর্তন করে আরেকটি প্রকল্প গ্রহণ করা না হলে হাওর রক্ষা সম্ভব না।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জগন্নাথপুর উপজেলা কার্যালয়ের মাঠ কর্মকর্তা উপ সহকারী প্রকৌশলী হাসান গাজী বলেন, গত বছর ওই এলাকায় ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের একটি প্রকল্প ছিল। এবার যখন প্রকল্পের জরিপ কাজ করা হয় তখনও ওই প্রকল্প এলাকা ভাঙ্গনমুক্ত ছিল। হঠাৎ করে কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গন তীব্র হয়ে ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের কাছাকাছি চলে আসে, ফলে ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধটি হুমকির মুখে পড়ার শংকা দেখা দেয়।

সুনামগঞ্জ জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের ফসল রক্ষা তদারক কমিটির সদস্য এডভোকেট শফিকুল আলম বলেন, বিষয়টি আমি জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের সভায় আলোচনা করেছি। দ্রুত এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে। না হলে ভেটুর হাওরসহ পুরো জগন্নাথপুর উপজেলার ফসল হুমকিতে পড়বে।

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ মেরামত ও সংস্কার তদারক কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহ্ফুজুল আলম বলেন, কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গনে ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধসহ বেশ কিছু এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার দৃশ্য পরিকল্পনামন্ত্রী সরেজমিনে পরিদর্শন করে দেখে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক বরাবরে ডিও পত্র দিয়েছেন। আমরা জেলা কমিটির সাথে আলোচনা করে নদী ভাঙ্গনের বিকল্প হিসেবে ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ রক্ষায় আরেকটি প্রকল্প গ্রহণ করাসহ নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে এলাকা রক্ষায় পদক্ষেপ নিতে কাজ করছি।

শেয়ার করুন