হিন্দু বাড়ি-ঘরে হামলা: শাল্লা থানার ওসি সাময়িক বরখাস্ত

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে সংখ্যালঘুদের বাড়ি-ঘরে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় দায়িত্ব অবহেলার দায়ে শাল্লা থানার ওসি নাজমুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বুধবার (৭ এপ্রিল) সকালে সুনামগঞ্জে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) ওসি নাজমুলকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তার স্থলে সুনামগঞ্জ মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. নূর আলমকে শাল্লা থানার ওসির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে সংখ্যালঘুদের বাড়ি-ঘরে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় পুলিশ হেডকোয়াটার্স থেকে তদন্ত চলছিল। এ তদন্তে দায়িত্বের অবহেলার কারণ প্রাথমিকভাবে প্রমানিত হওয়ায় ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে শাল্লা থানা ওসি নাজমুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

উল্লেখ্য, সোমবার (১৫ মার্চ) দিরাইয়ে হেফাজতের একটি সমাবেশে বক্তব্য রাখেন হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক। এরপর মঙ্গলবার শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের গুপেন্দ্র দাসের ছেলে ঝুমন দাস আপনের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে হেফাজতের নেতা মামুনুল হককে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে ফেসবুকে পোষ্ট দেন। এ নিয়ে এলাকায় প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়।

এ ঘটনায় ফেসবুকে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে ফেসবুকে পোষ্টদাতা আপন দাসকে মঙ্গলবার(১৬ মার্চ) রাতেই পুলিশ আটক করেছে। পরে বুধবার (১৭ মার্চ) স্থানীয় জনতা ও হেফাজত সমর্থকরা শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে হিন্দু ধর্মাবল্বীদের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে।

শেয়ার করুন