মিরাজের সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের ৪৩০ রান

সকাল ডেস্ক :
দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ১৪৮তম ওভারে জোমেল ওয়ারিকানের প্রথম বলে বাউন্ডারি মারেন, পরের বলে নেন দুই রান। পৌঁছান ৯৯ রানে। তৃতীয় বলটি ঠেকিয়ে পরের বলে দুটি রান নিয়ে হেলমেট খুলে ক্যারিয়ারের প্রথম আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি উদযাপন করেন। তিন অঙ্কের ঘরে মিরাজ পৌঁছান ১৫৯ বলে ১৩ চারে। এর আগে টেস্টে তার ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ রান ছিল অপরাজিতক ৬৮, ২০১৮ সালের নভেম্বরে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।
স্কোর: ১৫০.২ ওভারে ৪৩০ (মোস্তাফিজ ৩*, মিরাজ ১০৩)
বাংলাদেশের চারশ
মেহেদী হাসান মিরাজ একপ্রান্তে রান তুলছেন, আরেক প্রান্তের নাঈম হাসান দাঁত কামড়ে ক্রিজে পড়ে ছিলেন। তাদের জুটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ চারশ ছাড়ায়। এ নিয়ে ২২তম বার এক ইনিংসে চারশর বেশি রান করলো তারা।
এর আগে দলীয় ৩৯০ রানে নাঈমের বিরুদ্ধে এলবিডাব্লিউর জোরালো আবেদনে সফল হন রাকিম কর্নওয়াল। তবে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান রিভিউ নিলে সিদ্ধান্ত পাল্টান আম্পায়ার। ১৪ রানে জীবন পান নাঈম। অবশ্য ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। ৪৬ বলে চারটি চারে ২৪ রান করে এনক্রুমাহ বোনারের কাছে বোল্ড হন নাঈম। মিরাজের সঙ্গে নবম উইকেটে তার জুটিটা ছিল ৫৭ রানের।
তাইজুলকে ফেরালেন গ্যাব্রিয়েল
মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে পঞ্চাশ রানের জুটি গড়ার পথে ছিলেন তাইজুল ইসলাম। কিন্তু ৪৪ রানে থামতে হলো তাদের। তাইজুলকে উইকেটের পেছনে জশুয়া ডা সিলভার গ্লাভসবিন্দ করেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। ৭২ বলে ১৮ রান করেন তাইজুল, ছিল একটি বাউন্ডারি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিন প্রথম ইনিংসে ৩৫৯ রানে অষ্টম উইকেট হারালো বাংলাদেশ।
মিরাজের হাফ সেঞ্চুরি
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মেহেদী হাসান মিরাজের ব্যাটে প্রথম ইনিংসে তৃতীয় হাফ সেঞ্চুরির দেখা পেলো বাংলাদেশ। দ্বিতীয় সেশনের চতুর্থ ওভারে রাকিম কর্নওয়ালের বলে দুটি রান নিয়ে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ফিফটি উদযাপন করেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ৯৯ বল খেলে ৭টি চারে পঞ্চাশ ছোঁন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। অন্য প্রান্তে ছিলেন তাইজুল ইসলাম।
এর আগে বাংলাদেশের ইনিংসে সাদমান ইসলাম ও সাকিব আল হাসান হাফ সেঞ্চুরি করেন। সাদমানের ব্যাটে আসে ৫৯ রান। সাকিব দ্বিতীয় দিন ফিফটি করে ৬৮ রানে আউট হন।
মিরাজের ফিফটির অপেক্ষা নিয়ে লাঞ্চে বাংলাদেশ
প্রথম দিনের চেয়ে দ্বিতীয় দিন আরও দৃঢ় বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার নতুন দিনে প্রথম সেশনে দুই উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে ৮৬ রান যোগ করেছে স্বাগতিকরা। ৫ উইকেটে ২৪২ রানে খেলতে নেমে তারা লাঞ্চ বিরতির আগে ৭ উইকেটে করেছে ৩২৮ রান। মেহেদী হাসান মিরাজের ব্যাটে ইনিংসের তৃতীয় ফিফটি দেখার অপেক্ষায় স্বাগতিকরা, ৪৬ রানে অপরাজিত তিনি। অন্য প্রান্তে তাইজুল ইসলাম ৫ রানে খেলছেন।
৪৯ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে দিনের খেলা শুরু করেছিলেন সাকিব আল হাসান ও লিটন দাশ। আর ৬টি রান যোগ করে ভেঙেছে এই জুটি। জোমেল ওয়ারিকান বোল্ড করেন লিটনকে (৩৮)। মিরাজের সঙ্গে ৬৭ রানের জুটি গড়ে বিদা য়নেওয়ার আগে সাকিব ক্যারিয়ারের ২৫তম ফিফটি পান ১১০ বল খেলে। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান আউট হন ৬৮ রান করে। রাকিম কর্নওয়ালের বলে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটের ক্যাচ হন সাকিব। পরে মিরাজের সঙ্গে জুটি বাঁধেন তাইজুল। ১৩ রানের অপরাজিত জুটি গড়ে প্রথম সেশন শেষ করেছেন তারা।
কর্নওয়ালের বলে বিদায় নিলেন সাকিব
বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ উইকেটটি পেলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্পিনার রাকিম কর্নওয়াল। দলীয় ৩১৫ রানে সাকিব আল হাসান তার বলে পয়েন্টে সহজ ক্যাচ তুলে দেন, যা সহজে ধরেন সফরকারী অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট। ১৫০ বলে ৫ চারে ৬৮ রান করেছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান, এখন পর্যন্ত এটাই বাংলাদেশের ইনিংস সেরা ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স। মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে তার জুটি ছিল ৬৭ রানের।
সাকিব-মিরাজে তিনশ ছাড়িয়ে বাংলাদেশ
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে দ্বিতীয় দিনে সাকিব আল হাসানের সঙ্গে নতুন জুটি গড়তে নেমে দারুণ ছন্দে মেহেদী হাসান মিরাজ। দলীয় ২৪৮ রানে লিটন দাশের বিদায়ে মাঠে নামেন মিরাজ। সাকিবের সঙ্গে তার পঞ্চাশ ছাড়ানো অবিচ্ছিন্ন জুটিতে বাংলাদেশের দলীয় স্কোর তিনশ ছাড়িয়েছে।
সাকিবের হাফ সেঞ্চুরি
নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরার পর প্রথম টেস্টেই হাফ সেঞ্চুরি করলেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় দিনের সপ্তম ওভারে জোমেল ওয়ারিকানের বলে স্কয়ার লেগে শট খেলে সিঙ্গেল নিয়ে ফিফটির দেখা পান তিনি। ১১০ বলে পাঁচটি চারে ক্যারিয়ারের ২৫তম বার পঞ্চাশ ছুঁলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগের টেস্টেও হাফ সেঞ্চুরি ছিল সাকিবের। ২০১৮ সালে ঢাকা টেস্টে ৮০ রান করেছিলেন তিনি।
শুরুতেই মাঠছাড়া লিটন
৩৯ রানে সাকিব আল হাসান আর ৩৪ রানে লিটন দাশ দ্বিতীয় দিন খেলতে নামেন। কিন্তু দিনের তৃতীয় ওভারেই এই জুটি বিচ্ছিন্ন হলো। আগের দিন তিন উইকেট নেওয়া জোমেল ওয়ারিকান ফেরালেন লিটনকে। আর মাত্র চারটি রান করে ডানহাতি ব্যাটসম্যান বিদায় নিলেন। ৬৭ বলে ৬ চারে ৩৮ রান করেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান।
উইন্ডিজ স্পিনারের বল কাট করতে যান লিটন, কিন্তু বলে ব্যাট লাগাতে পারেননি। ভেঙে যায় অফস্টাম্প। তবে আম্পায়ার আউট দিতে একটু সময় নেন। তারা যাচাই করেন উইকেটকিপার জশুয়া ডা সিলভার গ্লাভসের ছোঁয়ায় স্টাম্প ভেঙেছে কি না। টিভি আম্পায়ার কয়েকবার রিপ্লে দেখে আউটের সিদ্ধান্ত জানান।
ইনিংস বড় করার লক্ষ্যে দিন শুরু বাংলাদেশের
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে হাতে আছে আর ৫ উইকেট, বাংলাদেশের স্কোরবোর্ড এখনও আড়াইশর ঘর স্পর্শ করেনি। তবে ক্রিজে আছেন ব্যাটিংয়ের অন্যতম ভরসা সাকিব আল হাসান। অন্য প্রান্তে তার সঙ্গী লিটন দাশ। ২৪২ রান নিয়ে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করেছে স্বাগতিকরা।
এই ইনিংস বড় করার লক্ষ্য বাংলাদেশের। প্রথম দিন সাদমান ইসলামের ৫৯ রানের ইনিংস স্বাগতিকদের স্কোরবোর্ডে সবচেয়ে অবদান রাখে। এরপর নাজমুল হোসেন শান্তর ২৫, অধিনায়ক মুমিনুল হকের ২৬ ও মুশফিকুর রহিমের ৩৮ রান স্বস্তিতে রাখে তাদের।

শেয়ার করুন