ভবিষ্যতে দেশেই তৈরি হবে যুদ্ধ বিমান: প্রধানমন্ত্রী

সকাল ডেস্ক :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মুজিববর্ষে দেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না। কোন ঘর থাকবে না অন্ধকারে। আর প্রতিটি গ্রামেই পৌঁছে যাবে শহরের মত সুযোগ সুবিধা। বিমান বাহিনীর দুটি স্কোয়াড্রনকে জাতীয় পতাকা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
বিমানবাহিনী আজ দেশে বিদেশে সমাদৃত হচ্ছে উল্লে­খ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে হবে। একসময় দেশেই যুদ্ধ বিমান তৈরি হবে বলেও আশাবাদ জানান তিনি।
যশোরে বিমান বাহিনীর বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ঘাঁটিতে ১১ স্কোয়াড্রন এবং ২১ স্কোয়াড্রনকে ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ডস প্রদান করা হয়। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে এই অনুষ্ঠানে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে বিমানবাহিনীর এই দুটি স্কোয়াড্রনের কাছে জাতীয় পতাকা হস্তান্তর করেন বিমানবাহিনী প্রধান।
এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জাতীয় পতাকা অর্জন যে কোন ইউনিটের জন্য গৌরবের। পাশাপাশি জাতীয় পতাকার মান রক্ষা করাও পবিত্র দায়িত্ব। বিমানবাহিনীকে তাাঁদের অর্জিত গৌরব ধরে রাখার তাগিদ দেন শেখ হাসিনা।
মহান মুক্তিযুদ্ধের পটভূমিতে জন্ম নেয়া বিমানবাহিনীকে যুগোপযোগী করতে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।
তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতেও তার সরকার অর্থনীতির চাকা সচল রেখেছে। ২০৪১ সালের প্রেক্ষিত পরিকল্পনাও নিয়েছে সরকার।
তূর্য্য ধ্বনির মধ্যে দিয়ে শেষ হয় বিমানবাহিনীর দুটি স্কোয়াড্রনকে ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ডস দেয়া আনুষ্ঠানিকতা।

শেয়ার করুন