সিলেট বিভাগে এক বছরে সড়কে প্রাণ গেছে ২৫০ জনের: নিসচা

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ।। সিলেট বিভাগরে চার জেলায় গত বছর সড়কপথে ১৮৭টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসব দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে ২৫০ জন, আহত হয়েছে ৩৯৮ জন। নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত সংগঠন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর ২০২০ সালের পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে নিসচা কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ২০২০ সালের সারাদেশের সড়ক দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান তুলে ধরেন। নিসচার প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৯ সাল থেকে ২০২০ সালে সিলেট বিভাগের সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা অর্ধেকের নিচে নেমে এসেছে বলে উল্লেখ করা হয়। ২০১৯ সালে সিলেট বিভাগে ২৭৪টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৩৮ জন নিহত ও ৪১৩ জন আহত হয়েছিলেন।

তথ্য অনুসারে সিলেট জেলায় ৪৭টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৬৯ জন নিহত ও ৬৪ জন আহত; সুনামগঞ্জ জেলায় ২১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২৩ জন নিহত ও ৬৪ জন আহত; মৌলভীবাজার জেলায় ৪৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৪ জন নিহত ও ৫৫ জন আহত হয়েছেন এবং হবিগঞ্জ জেলায় ৭৬টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১১৪ জন নিহত ও ২১৫ জন আহত হয়েছেন।

নিসচা কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্যসচিব জহিরুল ইসলাম মিশু গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জানান, দেশের ১১টি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা, ইলেকট্রনিক মিডিয়া, অনলাইন পত্রিকার তথ্য ও নিসচার শাখা সংগঠনগুলোর রিপোর্টের ভিত্তিতে নিসচা কেন্দ্রীয় কমিটি প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও সারাদেশের দুর্ঘটনার প্রতিবেদন তৈরি করেছে।

প্রতিবেদনে দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে সড়কে সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনা ও মনিটরিং এর অভাব, চালকদের মধ্যে প্রতিযোগিতা ও বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর প্রবণতা, লাইসেন্স ছাড়া চালক নিয়োগ, পথচারীদের মধ্যে সচেতনতার অভাব, ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করে ওভারটেকিং করা, বিরতি ছাড়াই দীর্ঘসময় ধরে গাড়ি চালানো, সড়ক-মহাসড়কের মোটরসাইকেলেও তিন চাকার গাড়ি বৃদ্ধি, মহাসড়ককে নির্মাণ ত্রুটি ও রাস্তার পাশে হাট-বাজার ও দোকানপাট বসানো।

এছাড়াও অশিক্ষিত ও অদক্ষ চালক, রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাব, সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বাস্তবায়ন না হওয়া মূল কারণ বলে প্রতিবেদনে চিহ্নিত করা হয়। দুর্ঘটনার জন্য দায়ী যানবাহনগুলোর মধ্যে বাস-ট্রাক, মোটরসাইকেল, কাভার্ডভ্যান, কার, সিএনজি, রিকশা ও সাইকেল উল্লেখযোগ্য।

শেয়ার করুন