সাহিত্য সংসদ জ্ঞান চর্চার বাতিঘর

কেমুসাস’র ৮৪তম সাধারণ সভায় বক্তারা

সিলেটের সকাল রিপোর্ট: বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় দেশের অন্যতম প্রাচীন সাহিত্য প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের (কেমুসাস) ৮৪তম বর্ষের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সভায় সভাপতির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মুজিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, সাহিত্য সংসদ জ্ঞান চর্চার বাতিঘর। জ্ঞানের চর্চা না করলে আমরা জাতি হিসেবে পিছিয়ে যাবো। সমগ্র জাতিকে সুশৃঙ্খল ও সংঘবদ্ধ হিসেবে গড়ে তুলতে জ্ঞান চর্চার বিকল্প নেই।
সাহিত্য সংসদের নিজস্ব অডিটোরিয়াম শহীদ সোলেমান হলে অনুষ্ঠিত সভায় সংসদের সাধারণ সম্পাদকের প্রতিবেদন পেশ করেন কেমুসাস’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী। সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যে দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী বলেন, কেমুসাস বাংলাদেশের অন্যতম একটি প্রাচীন প্রতিষ্ঠান। তথ্যপ্রযুক্তির বিপ্লবেও কেমুসাস অবদান রাখবে।
কেমুসাস’ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল মুকিত অপির পরিচালনায় সভার শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন সাইয়্যিদ শাহীন। শোক প্রস্তাব পাঠ করেন কার্য্যকরী কমিটির সদস্য ছয়ফুল করিম চৌধুরী হায়াত । বিগত সাধারণ সভার কার্যবিবরণী পাঠ করেন কার্য্যকরী কমিটির সদস্য জাহেদুর রহমান চৌধুরী। আয়-ব্যয়ের হিসাব, অডিট রিপোর্ট প্রস্তাবিত ২০২১ এর বাজেট পেশ করেন সংসদের কোষাধ্যক্ষ সৈয়দ মুহিবুর রহমান। সভায় ২০২১ সালের প্রায় ছিয়াশি লাখ টাকার প্রস্তাাবিত বাজেট, ২০২০ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব, অডিট রিপোর্ট ও বিগত বার্ষিক সাধারণ সভার কার্যবিবরণী অনুমোদন হয়। এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সভাপতি হারুনুজ্জামান চৌধুরী, কেমুসাস সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ মানিক, সহ-সভাপতি মুহম্মদ বশিরুদ্দীন, সহ-সভাপতি সেলিম আউয়াল।
সভায় প্রথমবারের মতো প্রবর্তিত কেমুসাস দেওয়ান আহবাব স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়। লোককবি মকদ্দস আলী উদাসী এ বছর এই পদক লাভ করেন।
সভায় বিভিন্ন প্রস্তাব ও বক্তব্য রাখেন-আজীবন সদস্য ডা. আব্দুল জলিল চৌধুরী, এডভোকেট হোসেন তৌফিক চৌধুরী, আব্দুল মালিক, এডভোকেট মো. রুহেল, কামাল আহমদ, সাংবাদিক কাউছার চৌধুরী, মোহাম্মদ আব্দুর রশিদ, সরওয়ার ফারুকী, শামসীর হারুনুর রশীদ, সাংবাদিক এম আহমদ আলী, হোসনে আরা কলি, রুহুল ফারুক, লোকমান হেকিম, মো. আব্দুল বাসিত বাসন, আব্দুল মুহিত দিদার, এম.এ মালিক চৌধুরী, মাওলানা আব্দুল মালেক চৌধুরী,তাসলিমা খানম বীথি, বাছিত ইবনে হাবীব ও কাউছার আহমদ।

শেয়ার করুন