কোর্ট পয়েন্ট-চৌহাট্টা সড়কে রিক্সা চলাচল বন্ধে সিসিক-এসএমপি যৌথ অভিযান

সিলেটের সকাল রিপোর্ট: সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্ট-চৌহাট্টা সড়কে রিক্সা, হাতা গাড়ি, ভ্যান ও লেগুনা চলাচল বন্ধে অভিযান চালিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক) ও সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি)।

রবিবার (৩ জানুয়ারী ২০২১) সকাল থেকে কোর্ট পয়েন্ট, জিন্দাবাজার ও চৌহাট্টা পয়েন্টে সিসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধে কাজ করেন। বিকেলে সিসিক-মহানগর পুলিশের যৌথ অভিযানে এই সড়কে পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায় অযান্ত্রিক সেসব বাহনের চলাচল।
সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) ফয়সাল মাহমুদ অভিযানে অংশ নেন।
অভিযান শেষে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আমরা নগরবাসীর সহযোগিতায় এই সড়কের ফুটপাত থেকে হকারদের সরিয়ে নিয়েছি। এখন আমরা এই সড়ককে একটি মডেল সড়কে রূপান্তরের জন্য কাজ করছি। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটিতে অযান্ত্রিক বাহনের চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণার পর গত দু-দিন আমরা পর্যবেক্ষণ করেছি। আশা করি, মহানগর পুলিশের আন্তরিক প্রচেষ্ঠায় এবং নগরবাসীর সহযোগিতায় এই সড়কে পুরোপুরি বন্ধ থাকবে রিক্সা চলাচল।

সিসিক মেয়র বলেন, যৌথ অভিযানে অনেককেই দেখেছি রাস্তায় গাড়ি পার্কিং করে চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি করছেন। তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়েছে। এসব বিষয়ে আমরা জিরো টলারেন্স নীতিতে অবলম্বন করবো। নগরবাসীর চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে গাড়ি পার্কিং থেকে বিরত থাকার আহবান জানান মেয়র। নগরের গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কে বাই লেন থেকে কেউ যেন রিকশা, হাতাগাড়ি, ভ্যান ও লেগুনা নিয়ে না আসেন সে আহবানও জানান তিনি।

অভিযানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-সিসিক কাউন্সিলর সৈয়দ তৌফিকুল হাদী, কাউন্সিলর বিক্রম কর স¤্রাট, কাউন্সিলর এ কে এ লায়েক, কাউন্সিলর আফতাব হোসেন খান, কাউন্সিলর তকবির ইসলাম পিন্টু, সিসিকের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ হানিফুর রহমান ও লাইসেন্স কর্মকর্তা আব্দুল আজিজ প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, নাগরিক দুর্ভোগ বিবেচনায় গত ১ জানুয়ারি থেকে এ সড়ক দিয়ে রিক্সা, হাতা গাড়ি, ভ্যান ও লেগুনা চলাচল বন্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সিসিক। কিন্তু, এরপর এ রাস্তা দিয়ে এসব অযান্ত্রিক যানবাহন চলাচল করছিল। এ অবস্থায় ররিবার সিসিক ও এসএমপি যৌথ অভিযান পরিচালনা করে।

শেয়ার করুন