ভারতের দায়োরামা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ও মার্কেটে রহমান মনি’র “দ্যা লেটারবক্স”

ডেস্ক রিপোর্ট:ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির সবচাইতে বড় চলচ্চিত্র আসর এবং রেড কার্পেট ইভেন্ট “দায়োরামা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব এবং মার্কেট ২০২০” এ নির্মাতা রহমান মনি’র প‚র্ণাঙ্গ সিনেমা “দ্যা লেটারবক্স” প্রদর্শনের জন্য অফিসিয়ালভাবে মনোনীত হয়েছে। ম‚ল প্রতিযোগিতা বিভাগে সারা বিশ্ব থেকে কয়েক হাজার ছবির মধ্যে শৈল্পিক মানদÐ আর পেশাদারিত্ব বিবেচনায় মাত্র ঊনিশটি সিনেমা আন্তর্জাতিক সেক্শনে স্থান পায়, যেগুলো একুশটি বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে গ্র্যান্ড প্রাইজ “গোল্ডেন স্পারো এ্যাওয়ার্ড” এর জন্য লড়ে যাচ্ছে। আর আমাদের দেশের “দ্যা লেটারবক্স” তার মধ্যে একটি। হলিউড ও বলিউডসহ সারা বিশ্ব থেকে অগণিত তারকা সম্মিলনে ১৮ ডিসেম্বের ২০২০ থেকে ১ লা জানুয়ারী ২০২১ তারিখ পর্যন্ত এই ইন্ডাস্ট্রিয়াল উৎসবটি ইন্দিরা গান্ধী সেন্টারসহ একাধারে তিনটি (ও, টি, টি) প্লাটফর্মে চলতে থাকবে। একই সময় “দ্যা লেটারবক্স” এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ারও অনুষ্ঠিত হবে।
ছবির পরিচালক রহমান মনি জানান, এই গুরুত্বপ‚র্ণ উৎসবে আমাদের দেশের কাজ উপস্থাপন করতে পেরে আমি গর্বিত এবং এই সফলতা শুধু আমার একার নয়। এর অংশীদার সকল শিল্পী, কলাকুশলীসহ শুভাকাঙ্খীরা। এর কারিগরি দিকসহ সবকিছুই সিলেটে হয়েছে এবং প্রযুক্তিগত দিক থেকে এটি উন্নত বিশ্বের হাই-এন্ড প্রোডাকশনকে অনুসরণ করে। দেশে এর মুক্তিক্ষণ বিশ্ব পরিস্থিতির উপর নির্ভর করবে।
“জীবন সহজ নয়, জটিলও নয়-জীবন জীবনের মতো, আমরাই একে সহজ করি, জটিল করি ” এই রকম অসংখ্য জোরালো দার্শনিক বার্তাসহ আবেগ, অনুভ‚তি, হাঁসি, কান্নায় ভরপুর গল্প নিয়ে এন্সিয়েন্ট মিডিয়ার ব্যানারে নির্মিত এই সিনেমাতে অভিনয় করেছেন যথাক্রমে সাহেদ মোশাররফ, আবু বকর আল আমিন, প‚নম কর প‚জা, রওশন রুনা, হানিফ খান, শবনম জেবি, ইসমত হানিফা, ফারুক খান কয়েস, দেবী রাজলাক্শমি তালুকদার, গোলাম হায়দার সিদ্দিক, আনোয়ার হোসাইন, ফারুক আহমেদ, ,খাইরুল ইসলাম, হাবিব উল্লাহ প্রমুখসহ স্থানীয় অনেক গুনী শিল্পী ও কলাকুশলীরা। প্রোডাকশন এক্সিকিউটিভঃ ইমরান সানি ও মিলাদ বড় ভুঁইয়া। কারিগরি সহযোগিতাঃ রুবেল প্রোডাকশন। সঙ্গীতঃ ওয়াইস উদ্দিন।
কাহিনী সংক্ষেপঃ গ্রামের একজন লক্ষ্যহীন ও নিঃসঙ্গ পোস্টমাস্টার যিনি তার অফিসের সম্মুখে রাখা পুরাতন ও জরাজীর্ণ লেটারবক্সটি নিয়ে খেলা করেন, কথা বলেন! কারণ এর মধ্যে তাঁর অতীত জীবনের অনেক স্মৃতি সংরক্ষণ করা রয়েছে। একদিন অফিস কর্মকর্তাদের দ্বারা বাক্সটি প্রতিস্থাপিত হলে তিনি প্রচÐভাবে ভেঙ্গে পড়েন এবং অনুভব করেন আপনজন হারানোর বেদনা! এক পর্যায়ে তিনি নিজেকে সামলে বাক্সটি পুনরুদ্বারে যাত্রা শুরু করেন এবং পথি মধ্যে কিছু কঠোর সত্যের মুখোমুখি হন, যা তিনি সারা জীবন অবহেলা করতেন। আর তা হলোঃ জীবন, ভালবাসা এবং অন্য মানুষকে সাহায্য করার আনন্দ।

শেয়ার করুন