সেই শেখ সাইদুর প্রতারণা মামলায় তিন দিনের রিমান্ডে

সেই শেখ সাইদুর প্রতারণা মামলায় তিন দিনের রিমান্ডে

সিলেটের সকাল রিপোর্ট: সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে ‘নির্যাতনে’ মারা যাওয়া রায়হান আহমদের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগ আনা শেখ সাইদুর রহমানকে তিনদিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। রোববার দুপুরে সিলেটের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুর রহমানের আদালতে তাকে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়। আদালত তার ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পিবিআই সিলেটের পুলিশ সুপার খালেদ উজ জামান জানান, রোববার দুপুরে একটি প্রতারণা মামলায় শেখ সাইদুর রহমানকে পিবিআই আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। পরে শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জানাগেছে, সৌদি রিয়াল দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে সাইদুরের বিরুদ্ধে মহানগর পুলিশের কতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন প্রাইভেটকার চালক নগরীর লন্ডনি রোডের বাসিন্দা আফজাল হোসেন আলাল। গত ২ নভেম্বর শেখ সাইদুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এই মামলাটি দায়ের করা হয়। এই মামলায় রোববার সাইদুরকে রিমান্ডে নিয়েছে পিবিআই। এর আগে গত ২৫ অক্টোবর সকালে শেখ সাইদুর রহমানকে আটক করে পিবিআই অফিসে নিয়ে আসে পুলিশ ব্যুারো অব ইনভেস্টিগেশন। পরে একইদিন বিকেলে তাকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশের দাবি ১০ অক্টোবর মধ্যরাতে রাতে শেখ সাইদুর রহমান বন্দরবাজার এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে থাকা কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে জানান তিনি কাষ্টঘর এলাকায় ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন। এরপর পুলিশ গিয়ে নগরীর নেহারিপাড়া মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে রায়হান আহমদকে ধরে নিয়ে এসেছিলো। পরে ফাড়িতে আটকে রেখে রায়হানকে নির্যাতন চালানো হয়। পরদিন ১১ অক্টোবর সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে রায়হান আহমদকে গুরুতর আহত অবস্থায় ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন বন্দরবাজার ফাঁড়ির এএসআই আশেকে এলাহী। সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে হাসপাতালে মারা যান রায়হান। রায়হান হত্যা মামলায় বর্তমানে ৪ পুলিশ সদস্য জেল হাজতে রয়েছেন।

শেয়ার করুন