নিরাপদ ভ্রমন র‌্যাংকিং-এ শীর্ষস্থান এমিরেটসের

ডেস্ক রিপোর্ট:সেইফ ট্রাভেল ব্যারোমিটার প্রদত্ত র‌্যাংকিং অনুযায়ী কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবিলায় গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের জন্য এমিরেটস বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ এয়ারলাইনের মর্যাদা লাভ করেছে। এয়ারলাইনটি সেইফ ট্রাভেল স্কোর মাপকাঠিতে ৫এর মধ্যে ৪.৪ পয়েন্ট অর্জন করে, যা বিশ্বের ২৩০ এর অধিক এয়ারলাইনের মধ্যে সর্বোচ্চ।
২৬টি স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা প্যারামিটারের ভিত্তিতে এই পয়েন্ট অর্জন করেছে এমিরেটস। এই পদ্ধতিতে নিরাপত্তা প্রটোকল, ভ্রমনকারীদের জন্য প্রদত্ত সুবিধা, ও উৎকৃষ্ট সেবার মান বিবেচনা করা হয়েছে।
সেফ ট্রাভেল টেকনোলজির বি-টু-বি সমাধানকারী সংস্থা হচ্ছে সেফ ট্রাভেল ব্যারোমিটার। ভ্রমন শিল্পে অ্যাডভাইজারি ও কনসাল্টিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ঠওউঊঈ এর একটি স্বাধীন অঙ্গ সংস্থা হিসেবে কাজ করে সেইফ ট্রাভেল টেকনোলজি। সেইফ ট্রাভেল ব্যারোমিটার কোভিড-১৯ মহামারী শুরুর পর থেকে ভ্রমন, পর্যটন ও আতিথেয়তা শিল্পের অন্তর্ভুক্ত প্রতিষ্ঠানসমূহ কর্তৃক গ্রহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ মনিটরিং ও প্রয়োজনীয় মানদন্ড প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সার্বিক সমাধান দিয়ে আসছে। রেটিং প্রক্রিয়া যে সকল বিষয় বিবেচিত হয় তার মধ্যে রয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ভ্রমনের প্রতিটি ধাপে ভ্রমনকারীদের জন্য গৃহীত হাইজিন ব্যবস্থার মান। এমিরেটস নিরবিছিন্নভাবে এ সকল ক্ষেত্রে উচ্চমান বজায় রেখে এসেছে।
এমিরেটস কর্তৃক গ্রহীত বারোসেফটি ব্যবস্থাগুলের মধ্যে আছে যাত্রীদের জন্য সৌজন্যমুলক হাইজিন কিট, চেক-ইন ও ইমিগ্রেশন কাউন্টারে সুরক্ষা ব্যবস্থা, কেবিন ক্রু ও বিমানবন্দর কর্মীদের জন্য পিপিই এবং সংশোধিত নিরাপত্তা প্রটোকল, উড়োজাহাজের পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অতিরিক্ত ব্যবস্থা ইত্যাদি।
ভ্রমনকারীদের সুবিধা সাব-ক্যাটাগরীতে বিশ্বের প্রথম এয়ারলাইন হিসেবে এমিরেটস তাদের যাত্রীদের বিনামূল্যে কোভিড-১৯ চিকিৎসা প্রদানের অঙ্গীকার করে। বুকিং নীতিমালাও শিথিল করেছে এমিরেটস। যাত্রীদের সুবিধা ও আস্থার কথা বিবেচনা করে এয়ারলাইনটি টিকিটের মেয়াদ ২ বছর পর্যন্ত বৃদ্ধি ও ভ্রমন তারিখ পরিবর্তনের সুযোগ প্রদান করছে।
এমিরেটস বর্তমানে ঢাকায় প্রতি সপ্তাহে ১০টি ফ্লাইট পরিচালনা করছে এবং ভায়া দুবাই বিশ্বের প্রায় ১০০টি নগরীতে ভ্রমন সুবিধা দিচ্ছে।

শেয়ার করুন