জগন্নাথপুর পৌর মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কম

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ।। সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র পদে উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শনিবার (১০ অক্টোবর) সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়েছে। পৌরসভার ৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। তবে ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি নেই বললেই চলে। ভোট কেন্দ্রের মাঠগুলো একদম ফাঁকা।

জানা যায়, মেয়র পদে নির্বাচন হচ্ছে মাত্র দুই মাসের জন্য। বিকেলে যিনি মেয়র হবেন তার মেয়াদকাল হবে মাত্র দুই মাস। আগামী ডিসেম্বর মাসে আবার দেশব্যাপী পৌর নির্বাচনের সময় এই পৌরসভায়ও নির্বাচন হবে। তাই এই নির্বাচন নিয়ে ভোটারদের মধ্যে তেমন উৎসাহ উদ্দিপনা নেই। আগ্রহ নিয়ে কেউ ভোটকেন্দ্রে আসছেন না। এ জন্য ভোটকেন্দ্রগুলো প্রায় ফাঁকা আছে।

উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে মোট ৪ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন— সরকার দল আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মিজানুর রশীদ ভূইয়া (নৌকা), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেক মেয়র আবদুল মনাফের ছেলে আবুল হোসেন সেলিম (জগ), বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী রাজু আহমদ (ধানের শীষ), বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী আবিবুল বারী আয়হান (মোবাইল)।

জগন্নাথপুর পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ২৮ হাজার ৫’শ ৫৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৩৩৮ ও নারী ভোটার ১৪ হাজার ২২১ জন।

এ বিষয়ে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ চলছে। তবে ভোটার উপস্থিতি কম। আশা করা যাচ্ছে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে।

উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারি জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আবদুল মনাফের মৃত্যু হলে মেয়র পদ শূন্য হয়ে যায়। পরে শূন্য পদে গত ২৯ মার্চ জগন্নাথপুর পৌরসভার উপ-নির্বাচনের ঘোষণা দেয় নির্বাচন কমিশন। তখন এ ৪ প্রার্থী অংশ নিয়েছিলেন। সেসময় করোনার কারণে নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। তবে চলতি বছরের ডিসেম্বরে ৫ বছরের জন্য পূর্ণ নির্বাচন হওয়ার কথাও রয়েছে। সে হিসেবে এ নির্বাচনে বিজয়ী মেয়র প্রায় মাত্র ২ মাস সময় পাবেন। শনিবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ১১টি কেন্দ্রের ৭২টি বুথে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

শেয়ার করুন