লেবাননে বিস্ফোরণে নিহত ২ বাংলাদেশি, আহত নৌবাহিনীর ২১ সদস্য

ডেস্ক রিপোর্ট:লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় দুই বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। বাংলাদেশ দূতাবাসের হেড অব চ্যান্সেরি ও ফার্স্ট সেক্রেটারি আবদুল্লাহ আল মামুন সংবাদ মাধ্যমকে জানান, “এখন পর্যন্ত দুইজন বাংলাদেশি মারা যাওয়ার খবর সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পেরেছি আমরা।” নিহতদের মধ্যে একজন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মেহেদি হাসান, অপরজন মাদারীপুরের মিজান।

এরআগে বিবিসি বাংলাকে আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, নিহত দুই বাংলাদেশির মধ্যে একজন বৈধ অভিবাসী হিসেবে স্পেনের একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করছিলেন। এ বিস্ফোরণের ঘটনায় কমপক্ষে ৫৯ জন বাংলাদেশি আহত হয়েছেন বলেও বিবিসি বাংলাকে জানান তিনি।

অন্যদিকে, বুধবার (৫ আগস্ট) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২১ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)। এদের মধ্যে গুরুতর আহত এক নৌসেনাকে আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব বৈরুত মেডিকেল সেন্টারে (এইউবিএমসি) ভর্তি করা হয়েছে।

আইএসপিআর জানায়, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের মেরিটাইম টাস্কফোর্সের অধীনে বাংলাদেশ নৌবাহিনী জাহাজ বিজয়ে ছিলেন তারা। শান্তিরক্ষা মিশন ইউনিফিলের সার্বিক তত্ত্বাবধানে বর্তমানে আহত নৌবাহিনীর সদস্যদের চিকিৎসা চলছে। প্রসঙ্গত, ২০১০ সাল থেকে লেবাননে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশগ্রহণ করে আসছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী।

নৌবাহিনী জানিয়েছে, এ দুর্ঘটনায় নৌবাহিনীর জাহাজ বিজয়ের বিস্তারিত ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ বিষয়ে নৌবাহিনীর জাহাজ, ইউনিফিল সদর দপ্তর ও বৈরুতে বাংলাদেশি দূতাবাসের সঙ্গে নৌবাহিনী সদর দপ্তরের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। ইউনিফিল হেড অব মিশন এবং ফোর্স কমান্ডার ও মেরিটাইম টাস্কফোর্স কমান্ডার সার্বিক পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন।

মঙ্গলবার বিকালে বৈরুতের বন্দর এলাকার পরপর দুটি বিস্ফোরণে পুরো শহরটি ভূমিকম্পের মতো কেঁপে ওঠে। বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন চার হাজারের বেশি মানুষ।

শেয়ার করুন