নগরীর কুয়ারপাড়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে আহত ৪ পুলিশঃ আটক ৩

 

সিলেটের সকাল রিপোর্টঃ নগরীর কুয়ারপাড়ে জায়গা দখলের ঘটনা প্রতিহত করতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছে কতোয়ালী থানার চার পুলিশ সদস্য। সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি ইট পাটকেল ও ককটেল নিক্ষেপ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১৬ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি করে। গত বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ৩ হামলাকারীকে আটক করেছে।
সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া সেল থেকে জানানো হয়, জাতীয় জরুরী সেবা-৯৯৯ এর মাধ্যমে কতোয়ালী থানা পুলিশ সংবাদ পায় নগরীর কুয়ারপাড়ে জায়গা দখলকে কেন্দ্র করে একদল সন্ত্রাসী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা করছে। তাৎক্ষনিক কতোয়ালী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সন্ত্রাসীদের নবিৃৃত করার চেষ্টা করে। এ সময় সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি ইট পাটকেল ও ককটেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ আতœরক্ষার্থে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৬ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি করে। খবর পেয়ে কতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ সেলিম মিঞা, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সৌমেন মৈত্র ও থানা ফাঁড়ির টহল পার্টি ঘটনা স্থলে পৌঁছে পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণে আনে।
এসময় পুলিশ ৩ হামলাকারীকে আটক করেছে। তারা হচ্ছে নগরীর কুয়ারপাড় ৩৬ ইঙ্গলাল রোডের মৃত গোল আহমদ ওরফে পুতুল মিয়ার পুত্র দেলোয়ার হোসেন ওরফে দিলিপ (৫০), শেখঘাট টিকরপাড়া আদনান কলোনীর এমরান মিয়ার পুত্র লিটন মিয়া (২২) এবং নবাব রোডের আব্দুল হাইর পুত্র আলমগীর হোসেন বাপ্পী (২৪)। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীদের ফেলে যাওয়া ৫টি মোটরসাইকেল, ২টি হ্যামার, ২টি লোহার সাবল, ১টি লোহার পাইপ, ৩টি রামদা, ১৮টি ঢেউটিন, ১টি সাইন বোর্ড, ৩টি লাল স্কচটেপযুক্ত বিষ্ফোরিত ককটেলের অংশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার এসআই আব্দুল মান্নান বাদী হয়ে বিস্ফোরক আইনে ২৭ নং মামলা এবং জায়গার মালিক হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে কতোয়ালী থানায় পৃথক আরেকটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং-২৮।

শেয়ার করুন