চৌহাট্টায় বোমা সদৃশ ডিভাইস: অপেক্ষা বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের !

ট্রাফিক সার্জেন্টের মোটর সাইকেলে জড়িয়ে রাখা এই বস্তুটি নিয়ে রহস্য

সিলেটের সকাল রিপোর্ট: সিলেট নগরীর চৌহাট্টায় মোটর সাইকেলে রাখা বোমাসদৃশ ডিভাইস নিয়ে রহস্য এখনো কাটেনি। বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ১২টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঘটনাস্থলে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট এসে পৌঁছায়নি। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের(এসএমপি)-কোতয়ালী মডেল থানার এসি(সহকারী কমিশনার) নির্মলেন্দু চক্রবর্তী জানান, তারা বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট আসার অপেক্ষায় রয়েছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে জিন্দাবাজার টু চৌহাট্টা সড়কে যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি।
এদিকে, মোটরসাইকেলে রাখা মেশিনটি নিয়ে অনেক আলোচনা চলছে। কেউ বলছেন এটি দেয়াল ছিদ্র করার গেরেনডার মেশিন আবার কেউ বলছেন এটি গ্রিল কাটার মেশিন। এর ভিতরে কি রয়েছে-এ নিয়ে কেউ নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছেন না।
সিলেট নগরীর চৌহাট্টায় যে মোটর সাইকেলে বোমা সদৃশ বস্তু রাখা হয়েছে-ওই মোটর সাইকেলটি সার্জেন্ট চয়ন নাইডুর বলে জানিয়েছেন ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) হাবিবুর রহমান। তিনি জানান, তিনি মোটরসাইকেলটি রেখে পাশের চশমার দোকানে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে এসে তিনি সাইকেলে বোমা সদৃশ ডিভাইস দেখতে পান।

মোটর সাইকেল ঘিরে সিআরটি সদস্যদের অবস্থান

বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় সিলেট নগরীর চৌহাট্টা পয়েন্টে একটি মোটর সাইকেল বোমাসদৃশ ডিভাইস পাওয়া যায়। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সন্ধ্যা ৭টা থেকে মোটরসাইকেলটি ঘিরে রেখেছে পুলিশ। এ অবস্থায় বুধবার সন্ধ্যা থেকে জিন্দাবাজার-চৌহাট্টা সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে র‌্যাবের বিশেষজ্ঞ দল।
জানা গেছে, পুলিশের ক্রাইসিস রেসপন্স টিমের (সিআরটি) সদস্যদেরকেও ঘটনাস্থলের পাশে অবস্থান করতে দেখা গেছে। তারা মোটর সাইকেলটি ঘিরে রেখেছেন। এরপর র‌্যাবসহ অন্য বাহিনীর সদস্যরাও সেখানে ছুটে আসেন।
সরেজমিনে দেখা যায়, সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামন থেকে চৌহাট্টা পয়েন্ট ঘিরে রেখেছে পুলিশ। চৌহাট্টা পয়েন্টে আগে পুলিশ বক্স যেখানে ছিল, এর পাশে রয়েছে ওই মোটরসাইকেলটি।
সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) জ্যোতির্ময় সরকার জানান, চৌহাট্টায় সন্দেহভাজন একটি মোটরসাইকেল কর্ডন করে রাখা হয়েছে। বোমা বিশেষজ্ঞদের খবর দেওয়া হয়েছে। তারা এলে মোটরসাইকেলে কি আছে-সে সম্পর্কে বলা যাবে।

শেয়ার করুন