যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে আবারো শনাক্ত ৩৩ হাজার

সংবাদ সম্মেলনের ইতি টানলেন নিউইয়র্ক গভর্নর কোমো

এমদাদ চৌধুরী দীপু, নিউইয়র্ক থেকেঃ যুক্তরাষ্ট্রে আবারো একদিনে শনাক্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার রোগী, মৃত্যু বেড়ে ৭১৪জনে চলে গেছে। দুই কোটি ৭২ লাখ মানুষের টেস্ট সম্পন্ন হয়েছে।তবে শনাক্ত হওয়ার সংখ্যা আগের চেয়ে উদ্বেগজনক অবস্থায় চলে এসেছে।

গত সপ্তাহে দিনে ১৯ হাজার শনাক্ত হতো। ওয়াল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রে এখন শনাক্ত ২২ লাখ ৯৬ হাজারের উপরে। মৃত্যু একলাখ ২১ হাজার ৪০২ জন। সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৫৫ হাজারের উপরে।
নিউইয়র্কে গতকাল শুক্রবার মৃত্যু সংখ্যা ছিল ৬৭ জন, শনাক্ত ১১৬৪ জন। তবে অন্যান্য অঙ্গরাজ্যে বেড়েছে শনাক্ত হওয়ার সংখ্যা। উদ্বেগজনক অবস্থা অন্তত ২১টি অঙ্গরাজ্যে।

উল্লেখযোগ্য শনাক্ত টেক্সাস,ক্যালিফোর্নিয়া,ফ্লোরিডা,এ্যারিজোনা,এ্যালিনইস অঙ্গরাজ্যে। বিভিন্ন সংখ্যায় মৃত্যুর খবর আসছে ৪৩টি অঙ্গরাজ্য থেকে। নিউইয়র্ক লকডাউনের দ্বিতীয় ফেইজে যাবে সোমবারে। ১১১তম দিবসে গতকাল শুক্রবার ছিল গভর্নর কোমোর শেষ সংবাদ সম্মেলন,সংবাদ সম্মেলনের ইতি টেনে গভর্নর বলেছেন অবস্থার আবারো অবনতি হলে তিনি সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করবেন। এদিকে নিউইয়র্কসিটির মেয়র ডি ব্লাজিও এবং স্টেট গভর্নর কোমো দুজনই দাবী করেছেন পর্যাপ্ত টেস্ট সম্পন্ন হওয়ার কারনে করোনা নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হয়েছে।
নিউইয়র্ক এর করোনা পরিস্থিতি এখনো উন্নতির ধারায় আছে। মোট শনাক্ত ৪লাখ ৯ হাজারের উপরে। মৃত্যু ৩১ হাজার ১৫৯জন। সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ৮৭ হাজার।
গভর্নর এ্যান্ডো কোমো দাবী করেছেন শুধু যুক্তরাস্ট্র নয় সারা পৃথিবীতে নিউইয়র্ক একটি মডেল। তবে সামাজিক দুরত্ব মেনে চলা এবং সতর্কতার মাধ্যমে আগামী দিনগুলো অতিবাহিত করার আহবান জানিয়েছেন কোমো,এছাড়া কোমো সামাজিক দুরত্ব যারা মানছেন না তাদেরকে পুলিশ কেন জরিমানা করছেনা সে ব্যাপারে বিস্ময় প্রকাশ করেন কোমো। যে সব অঙ্গরাজ্য লকডাউন তুলে দেয়ার পর আবার লকডাউন করতে বাধ্য হয়েছে তাদের উদাহরন দিয়ে কোমো সবাইকে ভ্যাকসিন বের না হওয়া পর্যন্ত সতর্ক থাকার আহবান জানিয়েছেন। নিউইয়র্কে টেস্ট এর পাশাপাশি ট্রেসিং এর উপর গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।
এদিকে বাংলাদেশী কমিউনিটিতে এখন আলোচনায় প্রাধান্য পাচ্ছে প্রাইমারী নির্বাচন। ২৩জুন নিউইয়র্কে ডেমোক্রেটদলীয় প্রাইমারী নির্বাচনে বাংলাদেশীরা ভালো ফলাফলের আশা করছেন।

শেয়ার করুন