নিউইয়র্কের ৩ লাখ নাগরিক ঘর থেকে বের হওয়ার অপেক্ষায়

লকডাউন তুলে দেয়ার তিন দিন বাকী

এমদাদ চৌধুরী দীপু, নিউইয়র্ক থেকেঃ বৈশ্বিক মহামারী করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে সুস্থ্য হচ্ছেন আশাব্যঞ্জক ভাবে।

৬সপ্তাহ আগে ১০০ জনকে টেস্ট করলে ২৬জন শনাক্ত হতো,এখন নিউইয়র্কে এই সংখ্যা নেমে এসেছে ৩জনে। আর ৩দিন দিন বাকী লকডাউন উঠে যাওয়ার। ধারনা করা হচ্ছে ৮জুন লকডাউন উঠে গেলে ঐদিন সকালে অন্তত ৩লাখ লোক ঘর থেকে বের হবেন।

কিছুদিন বিরতির পর নিউইয়র্কে আরেকজন বাংলাদেশী করোনায় মৃত্যুবরনের খবর পাওয়া গেছে। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশীদের মৃত্যু ২শ ৭০ এর উপরে।

এদিকে রাত ৮টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত কার্ফ্যু বলবৎ আছে। যুক্তরাষ্ট্রেজুড়ে বর্নবাদ ইস্যুতে চলমান আন্দোলনের জন্য এটি ৭জুন পর্যন্ত চলবে। আজো নিউইয়র্কসহ সব বড় বড় শহরে বিক্ষোভ হয়েছে। এ পর্যন্ত ১০ হাজার মানুষকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

নিউইয়র্ক এর গভর্নর কোমো বলেছে আন্দোলন এবং লুটপাট এক সাথে চলতে পারেনা।

এদিকে নিউইয়র্ক এর মেয়র সোমবার এবং মঙ্গলবার রাতে লোটপাটে ক্ষতিগ্রস্তদেরকে ৫লাখ ডলার ক্ষতিপূরন দেয়ার ঘোষনা দিয়েছেন।
যুক্তরাষ্ট্রে ওয়াল্ডোমিটারের তথ্যমতে সুস্থ্য হওয়ার সংখ্যা লক্ষনীয় উন্নতির ধারায় রয়েছে। গত ৪৮ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়েছেন ৭৬ হাজার। বর্তমান সংখ্যা ৭লাখ ১২ হাজার ।

এর বিপরীতে এখনো ৪৮ ঘন্টায় শনাক্ত হচ্ছেন ৪৫ হাজারের উপরে মানুষ। বর্তমানে মৃতের সংখ্যা এক লাখ ১০ হাজার ১৭৩জন। শনাক্ত ১৯ লাখ ২৪ হাজারের উপরে।
নিউইয়র্কে সামগ্রিক পরিস্থিতি উন্নতির ধারায় রয়েছে। ৪০টি রাজ্যে মৃত্যু অব্যাহত রয়েছে। নিউইয়র্কে মোট শনাক্ত প্রায় ৩লাখ ৮৪ হাজারের উপরে, মোট মৃত্যু ৩০ হাজার ২৮১জন। মাঝখানে ৩দিন,৮জুন তুলে দেয়া হবে নিউইয়র্ক সিটির লকডাউন। লকডাউনের আগে নিউইয়র্কে টেস্টিংহার সন্তোষজনক,হাসপাতালে ভর্তি,শনাক্ত হওয়া সবই লকডাউন তুলে নেয়ার পক্ষে রয়েছে।
মেনিসোটায় কৃঞ্চাঙ্গ যুবক নিহত হওয়ার পর নিউইয়র্ক এর মেয়র তার করোনা বিষয়ক প্রেসব্রিফিং বন্ধ রেখেছেন। নিউইয়র্কে চলমান পরিস্থিতি সামাল দিতে তার চেস্টা অব্যাহত রয়েছে। তবে তার সংবাদ সম্মেলনে করোনা উন্নতির বার্তা দিচ্ছেন। নার্সিংহোমসহ অন্যান্য মৃত্যু কমে আসছে বলে দাবী করেছেন গভর্নর কোমো।
গতকাল এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে করোনায় যুক্তরাস্ট্রে ৬৮ হাজার শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত যারা মারা গেছেন তাদেও ডাটা কালেকমণ চলছে। টেস্টিংকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে,নিউইয়র্কে প্রতিদিন ৫০ হাজার লোকেরটেস্টিং সম্পন্ন করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন