ছাতকে আগ্রাসী রূপ নিচ্ছে করোনা : হাটবাজারে লোকজন চলাফেরা করছে দেদারছে

ছাতক বাজারে ক্রেতাদের ভিড়-ফাইল ছবি

তমাল পোদ্দার, ছাতক প্রতিনিধিঃছাতকে করোনাভাইরাস দিন দিন আগ্রাসী রূপ ধারণ করছে। প্রাণঘাতী করোনার প্রকোপ বাড়ায় এ উপজেলায় একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক রোগী সনাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশবিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাব থেকে প্রাপ্ত রিপোর্টে ১৩ জনের করোনা পজিটিভ সনাক্ত হয়। এর মধ্যে ২ জন স্বেচ্ছাসেবকও রয়েছেন। নতুন আক্রাদের ১২ জনই উপজেলার জাউয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা। আর একজন নোয়ারাই ইউনিয়নের বেতুরা গ্রামের জনৈক কলেজ ছাত্র। কৈতক হাসপাতালের আরএমও ডা. মোজাহারুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে এ উপজেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও এখানকার মানুষের মধ্যে তেমন কোন সচেতনতা পরিলক্ষিত হচ্ছে না। হাট-বাজারে লোকজন দেদারছে চলাফেরা করছে। এমনকি হাটবাজারে মানুষের ভিড় পরিলক্ষিত হচ্ছে। ক্রেতা বিক্রেতা কেউই মানছে না স্বাস্থ্য বিধি। মুখে মাস্ক না পরে অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বেশীরভাগ লোকজন। যানবাহনে অতিরিক্ত যাত্রী বহনের সাথে অতিরিক্ত ভাড়াও আদায় করা হচ্ছে। কমে গেছে প্রশাসনের তৎপরতাও।
করোনা সচেতনতা সৃষ্টিতে শুরুতে প্রশাসনের ভূমিকা সর্বমহলে প্রসংশীত হলেও এখন আগের মতো সে তৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। সচেতন মহলের মতে , এ ব্যাপারে প্রশাসনের আরো কঠোর ভূমিকা নেওয়া প্রয়োজন। ভ্রাম্যমান নজরদারি না বাড়ালে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর মিছিল আরো বাড়তে পারে।
ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, এ পর্যন্ত এ উপজেলায় ২ জন ডাক্তারসহ মোট ৪০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়েছেন ৫ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন একজন। এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাজীব চক্রবর্ত্তী জানান, এখন উদ্বেগজনক হারে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। যা মোটেও ভালো লক্ষণ নয়। তিনি সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন।

শেয়ার করুন