কানাইঘাটে করোনার হাফ সেঞ্চুরি

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ।। সিলেটের সীমান্তবর্তী কানাইঘাট উপজেলায় মহামারি করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৪ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে উপজেলায় করোনার ‘হাফ সেঞ্চুরি’ পূর্ণ হলো।

করোনা যতটা অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছে, একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে জনসাধারণের বাইরে বেরিয়ে আসার প্রবণতা। উপজেলার হাট-বাজারগুলোতে তিলধারণের ঠাঁই নেই। মানা হচ্ছে না কোন স্বাস্থ্যবিধিও। ফলে উপজেলায় করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপের ইঙ্গিত দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

আরও পড়ুন-কানাইঘাটে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে

কানাইঘাটে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত ৯ মে। প্রথম আক্রান্ত রোগী ফারুক আহমদ সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এরপর থেকে করোনা সংক্রমণে সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। প্রথম আক্রান্তের ২৩ দিনের মাথায় মোট ৫০ জন রোগী শনাক্ত হলেন।

সোমবার (০১ জুন) সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে সিলেট জেলার ৪৯ জনের পজিটিভ শনাক্ত হয় বলে জানান ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. হিমাংশু লাল রায়। নতুন শনাক্ত হওয়াদের মধ্যে কানাইঘাট উপজেলার রয়েছেন চারজন।

এর আগে আক্রান্তদের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শেখ শরফুদ্দিন নাহিদ ও তার স্ত্রী আয়শা আক্তার, বড়চতুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হোসাইন চতুলী, কানাইঘাট থানার দুই এসআইসহ পাঁচজন, উপজেলা হাসপাতালের উপ-সহকারী চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী ও জনসাধারণ রয়েছেন।

আরও পড়ুন-কানাইঘাটে ইউপি চেয়ারম্যানসহ আরও ৪ জন করোনায় আক্রান্ত

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আনিসুর রহমান বলেন, ‘মানুষ যদি নিজের ভালো না বোঝে, তাহলে স্বাস্থ্য বিভাগের কিছু করার থাকে না। ভাইরাসটা দ্রুতই ছড়িয়ে পড়ছে। মানুষকে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। নয়তো এ বিপর্যয় ঠেকিয়ে রাখা কোনোভাবেই সম্ভব নয়’।

সোমবার রাত পর্যন্ত সিলেট জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬১৪ জন। মারা গেছেন প্রথম আক্রান্ত ডাক্তার মঈন উদ্দিনসহ ১৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ৬১ জন।

আরও পড়ুন-সিলেটে চিকিৎসক, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ আরও ৪৯ জন করোনায় আক্রান্ত

শেয়ার করুন