শেওলা দিয়ে এলেন ২০ বাংলাদেশী, ফেরত গেলেন ৭৯ ভারতীয়

সিলেটের সকাল রিপোর্ট: করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট লকডাউনে ভারতের বিভিন্ন এলাকায় আটকে পড়া ২০ বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। একইদিন বাংলাদেশে আটকে পড়া ৭৯ ভারতীয় নিজ দেশে ফিরে গেছেন। দীর্ঘ প্রায় দুই মাস পর বৃহস্পতিবার (২৮ মে) উভয় দেশের নাগরিকরা দেশে ফেরত আসা ও ভারতে ফেরত যাওয়ার সুযোগ পেলেন।

শেওলা ইমিগ্রেশন পুলিশের ইনচার্জ এস আই আবুল কালাম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় জানান, ফিরে আসা বাংলাদেশীরা ভারত থেকে হেলথ কার্ড নিয়ে এসেছেন। পাশাপাশি বিয়ানীবাজার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুজন চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষাশেষে তাদের হেলথ কার্ড প্রদান করেছেন। ফিরে আসাদের বেশীরভাগ সিলেট, মৌলভীবাজার ও রাজশাহী জেলার বাসিন্দা। সিলেটের জেলা প্রশাসক ও বিয়ানীবাজারের ইউএনও’র নির্দেশনা অনুযায়ী তাদেরকে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার কঠোর বার্তা দেয়া হয়েছে বলে জানান এস আই আবুল কালাম। তিনি জানান, লকডাউনের পর ভারত থেকে এ পর্যন্ত ২৬ বাংলাদেশী ফিরে এসেছেন। এর মধ্যে ১৫ মে ৫ জন এবং এর আগে আরো একজন বাংলাদেশে ফিরেন বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

জানা গেছে, দুই দেশের সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের যোগাযোগের মাধ্যমে আবেদন করা এসব নাগরিকদের বিশেষ ব্যবস্থায় নিজ নিজ দেশে প্রেরণ করা হয়। আসা যাওয়ার এ প্রক্রিয়া সীমান্ত আইন ও স্থলবন্দরের স্বাভাবিক নিয়মে সম্পাদন করা হয়েছে। এসময় বিজিবি, ইমিগ্রেশন ও কাস্টমসের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

স্থলবন্দেরর মেডিকেল টিমের দায়িত্বে থাকা বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. নয়ন মল্লিক বলেন, ‘বৃহস্পতিবার ভারত থেকে দেশে ফেরা ২০ বাংলাদেশি নাগরিককে শেওলা স্থলবন্দর হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের পর সবাইকে হোম কোয়ারেন্টিনে অবস্থান করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ মিলেনি। পাশাপাশি তারা সকলেই শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন’ বলে জানান তিনি।
এস আই আবুল কালাম জানান, লকডাউনের পর ভারত থেকে এ পর্যন্ত ২৬ বাংলাদেশী ফিরে এসেছেন। এর মধ্যে ১৫ মে ৫ জন এবং এর আগে আরো একজন বাংলাদেশে ফিরেন বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন