লিবিয়া নিহত ২৩ বাংলাদেশির পরিচয় পাওয়া গেছে

সিলেটের সকাল ডেস্ক ।। লিবিয়ায় মানবপাচারকারী চক্রের পরিবারের সদস্যদের হাতে নিহত ২৬ বাংলাদেশির মধ্যে ২৩ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। পরিচয় পাওয়া গেছে আহত ১১ জনেরও। নিহতদের মধ্যে ১১ জনের বাড়িই মাদারীপুর জেলায়, সাতজনের বাড়ি কিশোরগঞ্জে। বাকি পাঁচজনের বাড়ি যশোর, ঢাকা, মাগুরা, গোপালগঞ্জ।

আজ শুক্রবার লিবিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশি দূতাবাস পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে তাদের পরিচয় পাঠিয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, লিবিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মিজদাহে (ত্রিপলি হতে ১৮০ কি.মি. দক্ষিণে) বর্বোরোচিত হামলায় আহতদের সঙ্গে কথা বলে প্রাপ্ত তথ্য থেকে নিহত সম্ভাব্য বাংলাদেশিদের একটি তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। আহতরা জানিয়েছেন ঘটনাস্থলে মোট ৩৮ জন বাংলাদেশি জিম্মি ছিলেন। সেখান থেকে তারা নিহত ২৩ জনের পরিচয় জানতে পেরেছেন। বাকি তিনজনের বিষয়ে দূতাবাসের পক্ষ থেকে অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

পরিচয় শনাক্ত হওয়া নিহতরা হলেন- মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বিদ্যানন্দীর জুয়েল, মানিক, একই জেলার টেকেরহাটের আসাদুল, আয়নাল মোল্লা, মাদারীপুরের জাকির হোসেন, জুয়েল-২, টেকেরহাটের মনির, রাজৈরের ইশবপুরের মনির, সজীব, মাদারীপুরের ফিরোজ, মাদারীপুরে দুধখালীর শামীম, ঢাকার আরফান, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরের রহিম, ভৈরবের রাজন, শাকিল, ভৈরবের শ্রীনগরের সাকিব মিয়া, ভৈরবের রসুলপুরের আকাশ, ভৈরবের সোহাগ, মো. আলী, গোপালগঞ্জের সুজর, কামরুল, যশোরের রাকিবুল, মাগুরার মোহাম্মদপুরের বিনোদপুর নারায়নপুরের লাল চান্দ।

আহত ১১ জন হলেন- মাদারীপুর সদরের তীর বাগদি গ্রামের ফিরোজ বেপারী (হাঁটুতে গুলিবিদ্ধ), ফরিদপুরের ভাঙ্গার দুলকান্দি গ্রামের মো. সাজিদ (পেটে গুলিবিদ্ধ), কিশোরগঞ্জের ভৈরবের শম্ভপুর গ্রামের মো. জানু মিয়া (পেটে গুলিবিদ্ধ), ভৈরবের জগন্নাথপুর গ্রামের মো. সজল মিয়া (দুই হাতে মারাত্মকভাবে জখম ও মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন), গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরের বামনডাঙ্গা বাড়ির ওমর শেখ (হাতে মারাত্মকভাবে জখম ও আঙ্গুলে কামড়ের দাগ, দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ), টাঙ্গাইলের মহেশপুরের বিনোদপুরের নারায়ণপুরের মো. তরিকুল ইসলাম (২২), চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার মো. বকুল হোসাইন (৩০), মাদারীপুরের রাজৈরের মো. আলী (২২), কিশোরগঞ্জের ভৈরবের সোহাগ আহমেদ (২০), মাদারীপুরের রাজৈরের মো. সম্রাট খালাসী (২৯) এবং চুয়াডাঙ্গার বাপ্পী (মস্তিষ্কে গুলিবিদ্ধ, গুরুতর অবস্থা)। আহত সবাই ত্রিপলি মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) লিবিয়া সরকার এক বিবৃতিতে জানায়, লিবিয়ার মিজদাহ শহরে সংঘটিত হত্যাকাণ্ডে নিহত ৩০ জনের মধ্যে ২৬ জনই বাংলাদেশি। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১১ জন। লিবিয়ার নিহত এক মানবপাচারকারীর পরিবারের সদস্যরা এ হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে। পরিবারের দাবি এসব অভিবাসীরাই ওই মানবপাচারকারীকে হত্যা করেছেন। সেই হত্যার প্রতিশোধ নিতে ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

শেয়ার করুন