ভার্চুয়াল ক্লাসে খুশি ইউরোকিডসের শিশুরাও

সিলেটের সকাল ডেস্ক ॥ করোনা পরিস্থিতিতে সিলেটের জনপ্রিয় প্রি-স্কুল ইউরোকিডস’র অনলাইনের মাধ্যমে যেভাবে পড়ুয়া শিশুদের ক্লাস নিচ্ছে, তাকে স্বাগত জানিয়েছেন অভিভাবকরা। আর এই ক্লাসরুমে খুশি শিশুরাও; আনন্দের সাথে তারা ক্লাসে অংশও নিচ্ছেন।

ইউরোকিডস মূলত একটি ইন্টারন্যাশনাল প্রি-স্কুল চেইন যেখানে বাচ্চাদের স্কুলে ভর্তি হওয়ার আগের সময়টুকুতে খেলাধুলার মাধ্যমে ও বিভিন্ন সহজ পদ্ধতিতে শিক্ষাপ্রদান করা হয়ে থাকে৷

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শুরু থেকেই ইউরো জুনিয়র ও ইউরো সিনিয়র ব্যাচের ক্লাস ভার্চুয়ালী নেওয়া হচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি শতভাগ। শিগগিরই নার্সারি ব্যাচের শিশুদেরও ভার্চুয়াল ক্লাসের আওতায় আনা হবে।

ক্লাস চলাকালীন সময়ে প্রশ্ন করার সুযোগ থাকায় খুশি ক্ষুদে শিক্ষার্থীরাও। তারা শিক্ষকের সাথে কথা বলে নিজেদের পড়া বুঝেও নিচ্ছেন। আর শিক্ষকও তাদের পড়া সাবলিলভাবে বুঝিয়ে দিচ্ছেন। এ কারণে টানা বন্ধের প্রভাব পড়ছেনা শিক্ষার্থীদের একাডেমিক পড়াশুনায়।

অভিভাবকরা বলছেন, লকডাউনের কারণে স্কুল বন্ধ। কবে খুলবে তার কোনও নিশ্চয়তা নেই। এই অবস্থায় বাড়িতে বসে পড়শোনা চালানো এবং নিজেদের এগিয়ে রাখার ক্ষেত্রে এই ভার্চুয়াল ক্লাস সাহায্য করবে।’

সিলেটের লিডিং ইউনিভার্সিটির লেকচারার তাহরিমা চৌধুরির মেয়ে ইউরোকিডসে পড়ছে। এ বিষয়ে তিনি বলছিলেন, ‘এরকম লকডাউনের সময়ে বাচ্চারা অনেক বিষণ্ণ থাকে কারণ তাদের কিছুই করার নেই। তবে অনলাইন ক্লাস শুরু হওয়ার পর থেকে আমার মেয়ে তার টিচার এবং বন্ধুদের কে দেখতে পারছে কথা বলতে পারছে, আমি সাধুবাদ জানাই ইউরোকিডস কতৃপক্ষকে এমন উদ্যোগ চালু রাখার জন্য।’

অনলাইনে পাঠদান সম্পর্কে অভিজ্ঞতা সম্পর্কে স্কুলের শিক্ষিকা মিস নাজিয়া বলেন, ‘করোনা মহামারির এই সময়ে ভার্চুয়াল ক্লাসের বিষয়টি বাচ্চাদের জন্য খুবই উপভোগ্য এবং অল্প সময়ে তারা অভ্যস্থ হয়ে পড়েছে। এতটুকু বয়সেই তারা ক্লাস এর সময়ে উপস্থিত থাকছে এবং ক্লাসের দেয়া কাজগুলো যত্নের সাথে করছে।’

ইউরোকিডস সিলেটের প্রিন্সিপাল রুশিনা চৌধুরীর জানান, ‘বাচ্চাদের জন্য এটা সম্পূর্ণ নতুন অভিজ্ঞতা, তারা আনন্দের সাথেই ক্লাস করছে। আর আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি সকল অভিভাবকদের,যারা আমাদেরকে এই সময়ে সহযোগিতা করছেন। তবে আমরা ক্লাস টাইম খুব বেশি সময় রাখছিনা, কারণ আমাদেরকে মাথায় রাখতে হবে বাচ্চাদের জন্য স্ক্রিন টাইম লিমিটেড থাকাটাই বেশি প্রয়োজন।’

অবস্থা স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ইউরোকিডস-সিলেটের এই অনলাইনে পাঠদান কার্যক্রম চালু থাকবে বলে জানিয়েছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

শেয়ার করুন