দেড়শ’ বছর পর যুক্তরাষ্ট্রে আরেক মেমোরিয়াল ডে-র অপেক্ষা

‘ঈদ জামাত হবার সম্ভাবনা নেই’

 

এমদাদ চৌধুরী দীপু, নিউইয়র্ক থেকে ॥ দেড়শ’ বছর পর আরেক মেমোরিয়াল ডে’র অপেক্ষায় যুক্তরাষ্ট্রবাসী। ১৮৬৮ সালে জনযুদ্ধে নিহত সেনাদের স্মরণে প্রতি বছর মে মাসের শেষ সোমবার পালন করা হয় মেমোরিয়াল ডে। তিনদিনের জন্য পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। আজ শুক্রবার থেকে এটি শুরু করার কথা বলেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এদিকে হাউজ লিডার ডেমোক্রেট নেত্রী ন্যান্সি প্যালসি করোনায় এক লাখ মানুষের মৃত্যু অতিক্রম করার দিন তাদের স্মরণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে রাখার দাবী জানিয়েছেন।
মেমোরিয়াল ডে উপলক্ষে নিহতদের স্মরণে ফুলেল শ্রদ্ধাসহ পতাকা শোভিত করা হয় নিহতদের কবর। যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালনে প্যারেড, শোভাযাত্রাসহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে নিহতদের স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও সম্মান জানান আমেরিকাবাসী। তবে এবার আরো একটি মেমোরিয়াল ডে’র অপেক্ষায় রয়েছেন আমেরিকাবাসী। অদৃশ্য এক শত্রুর সাথে লড়াইয়ে এবার লক্ষ প্রাণের মৃত্যুর খবর শিরোনাম হতে পারে তিনদিন ব্যাপী মেমোরিয়াল ডে’র আনুষ্ঠানিকতার মাঝেই। বৈশ্বিক মহামারী করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু ৯৬ হাজার ৩৫৪ অতিক্রম করেছে। ৩/৪দিনের মধ্যে এই সংখ্যা ্এক লাখে পৌঁছবে বলে ধারণা করছেন পর্যবেক্ষকরা। যুক্তরাষ্ট্রে বৃহস্পতিবার নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮ হাজার। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, এখন মোট শনাক্ত ১৬ লাখ ২০ হাজার। সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৮২ হাজার এর উপরে।

বৈশ্বিক করোনায় শুধু এক লাখ মানুষের মৃত্যু হবে কিংবা সেটি আগস্ট পর্যন্ত দেড় লাখে যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত কর্মহীন হয়ে পড়েছেন চারলাখ মানুষ। বন্ধ রয়েছে পর্যটন ব্যবসা,আমদানী রপ্তানী কমে এসেছে। থমকে আছে রাজস্ব আদায়,দেউলিয়া হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে ব্যাংকিং সেক্টরে,সবমিলে এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে সুপারপাওয়ার যুক্তরাষ্ট্র। দেশের অর্থনীতি চালু করার জন্য ক্ষমতাসীন দল রিপাবলিকানরা চান লকডাউন তুলে দিয়ে আমেরিকাকে রিওপেন করতে। এদিকে ডেমোক্রেটরা চাচ্ছেন করোনা পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত লকডাউন অব্যাহত রাখা।
করোনা পরিস্থিতি নিউইয়র্ক স্টেটে উন্নতি হচ্ছে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন মাত্র ৬৯ জন। আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৮৪০ জন। আবার বেড়েছে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা। এদিকে যে সব স্টেটে লকডাউন তুলে দেয়া হয়েছিল সেইসব রাজ্যে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে । জুনের মাঝামাঝি নিউইয়র্ক এর লকডাউন তুলে দেয়ার আভাস দিয়েছেন মেয়র ডি ব্লাজিও এবং গভর্নর এ্যান্ডো কোমো। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি ঘরে বর্তমানে একজন করে বেকার রয়েছেন বলে এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে। এমন বাস্তবতায় ৩১ জুলাই পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে আনএমপ্লয়মেন্ট ভাতা পাওয়া যাবে বলে নিশ্চিত হলেও এরপর বেকার ভাতা বন্ধ করতে চায় রিপাবলিকানরা। এদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে কোন পরিস্থিতিতে অর্থনীতি সচল করতে আমেরিকা রিওপেন করতে চান। করোনা ভাইরাস থেকে আমেরিকাকেমুক্ত করতে ৩শ মিলিয়ন ভ্যাক্সিন ক্রয় করতে চায় যুক্তরাস্ট্র। এই ভ্যাক্সিন যুক্তরাজ্য থেকে ক্রয় করার খবর দিয়েছে বিভিন্ন গণমাধ্যম।
সর্বশেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রে ঈদ জামাতের কোন সম্ভাবনা নেই বলে আবারো নিশ্চিত করা হয়েছে; যদি শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ব্যতিক্রম কিছু না ঘটে।

শেয়ার করুন