করোনা মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রে সবাইকে মাস্ক পড়ার আহ্বান

সিলেটের সকাল ডেস্ক:: একক পদক্ষেপ হিসেবে নিউইয়র্ক গভর্নর নাটকীয়ভাবে বেসরকারি হাসপাতাল ও কোম্পানির অব্যবহৃত ভেন্টিলেটর জব্দের নির্দেশের পর ট্রাম্প প্রশাসন আমেরিকানদের সবাইকে মাস্ক পরার আহ্বান জানিয়েছেন এবং চিকিৎসামগ্রী সীমিত আকারে রপ্তানির আহ্বান জানিয়েছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষিত নতুন নির্দেশনায় প্রত্যেককে বাড়ি থেকে বের হওয়ার সময় মাস্ক ব্যবহারের আহ্বান জানানো হয়েছে, বিশেষত নিউইয়র্কের মতো করোনাভাইরাসে মহমারি আকার ধারণ করা এলাকাগুলোতে।

তবে রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের এ পরামর্শ মেনে চলার কোনো ইচ্ছা তার নেই জানিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘এটা তাদের পরামর্শ। তারা মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে। তবে আমি এটা ব্যবহার করতে চাই না।’

স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের উদ্বেগের মধ্যে এই নীতিতে পরিবর্তন আনা হয়েছে, কারণ করোনাভাইরাসের উপসর্গ না থাকলেও ভাইরাস ছড়াতে পারে বিশেষত নিত্য প্রয়োজনীয় পণদ্রব্যের দোকানগুলো বা ফার্মেসিগুলোতে।

স্বাস্থ্য কর্মকর্তারাও এটাও বলেছেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় যারা সামনে থেকে কাজ করছেন, বিশেষ করে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য মাস্কগুলো সংরক্ষণ করাও উচিত হবে।

চিকিৎসা সরঞ্জামের ব্যাপক ঘাটতি দূর করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে আক্রমণাত্মক একটি পদক্ষেপ নিয়েছেন নিউইয়র্ক গভর্নর অ্যান্ড্রু কুওমো।

তিনি বলেন, বেসরকারি হাসপাতাল বা কোম্পানিগুলো যেসব ভেন্টিলেটর ব্যবহার করা হচ্ছে না সেগুলো নেয়ার জন্য তিনি কার্যনির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করবেন। ‘জীবন বাঁচাতে অতিরিক্ত ভেন্টিলেটর নেয়ার জন্য আমাকে আদেশ দিতে হলে তাই দেব।’

তবে চিকিৎসা সরঞ্জামগুলো শেষ পর্যন্ত ক্ষতিপূরণসহ তার মালিকদের ফিরিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন গভর্নর কুওমো।

শনিবার সকাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে ২ লাখ ৭৭ হাজার ৪৭৫ জন আক্রান্ত হয়েছে এবং তাদের মধ্যে ৭ হাজার ৪০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর অর্ধেক ঘটনাই নিউইয়র্কের। সেখানে ১ লাখ ৩ হাজার ৪৭৬ আক্রান্ত এবং ৩ হাজার ২১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

শেয়ার করুন