করোনা আতঙ্কে রোগী শুন্য কোম্পানীগঞ্জ সদর হাসপাতাল

কোম্পানীগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি ॥ নভেল করোনাভাইরাস আতঙ্কে রোগীরা যাচ্ছেন না হাসপাতালে। এ কারণে সিলেটের সীমান্তবর্তী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সদর হাসপাতাল একেবারে রোগী রোগীশুন্য। যেখানে আগে প্রতিদিন বর্হিবিভাগে শতাধিক রোগী চিকিৎসা নিতেন, আর ভর্তি থাকতেন আরও ২০-২৫ জন রোগী।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মো. মাসুম জানিয়েছেন, ‘যারা স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করবেন তাদের সুরক্ষা নিশ্চিত না করা গেলে সেবা প্রদান ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। আমরা জনগণকে আতঙ্কিত না হবার পরামর্শ দিচ্ছি। সাধারণ সর্দি-কাশির জন্য কারও হাসপাতালে আসার প্রয়োজন নেই। কখন কার থেকে ভাইরাস ছড়াবে বলা মুশকিল। স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেন, আমরা চাই কোম্পানীগঞ্জবাসী করোনামুক্ত থাকুক। এজন্য আতঙ্ক নয়, সবাইকে সচেতন হতে হবে।’

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, ‘উপজেলার চাটিবহর গ্রামের কবির ভর্তি হয়েছিলেন বুকে ব্যথা নিয়ে। ব্যথা একটু কমলেই তিনি চলে যান। সর্দি-কাশির চিকিৎসা নিতে আসা ভোলাগঞ্জ গুচ্ছগ্রামের মাহবুব ইমার্জেন্সীতে চিকিৎসা নিয়েই দ্রুত চলে যেতে দেখা যায়।’

ইমার্জেন্সীর চিকিৎসক মোঃ আব্দুল খালিক জানান, এক ধরনের আতঙ্কের কারণে রোগীরা হাসপাতালে থাকতে চাচ্ছে না। তাছাড়া সাধারণ সর্দি, কাশি, জ¦র হলে হাসপাতালে না আসার পরামর্শ দেওয়ায় রোগী কম আসছে।

ডাক্তার লুৎফুর রহমান বলেন, সবার মধ্যেই করোনা আতঙ্ক বিরাজ করছে। যে কারণে হাসপাতালে রোগী কম।

শেয়ার করুন