সালমান শাহর ভাস্কর্য নিয়ে ভাইয়ের আপত্তি

সিলেটের সকাল ডেস্ক ।। বাংলা সিনেমার তুমুল জনপ্রিয় তারকা সালমান শাহর ভাস্কর্য স্থাপন করা হয়েছে গাজীপুরের তুরাগ তীরে নির্মিত একটি শুটিং ও পিকনিক স্পটে। আর এতে আপত্তি জানিয়েছেন প্রয়াত এ অভিনেতার ভাই শাহরান চৌধুরী। ফেসবুক লাইভে তিনি ভাস্কর্যটি নামিয়ে ফেলতে সংশ্লিষ্টদের অনুরোধও করেছেন।

গাজীপুরের কালীগঞ্জ থানার বীরতুল উত্তরপাড়ায় সালমান শাহ’র স্মরণে ‘স্বপ্নের ঠিকানা’ নামে একটি রিসোর্ট তৈরি করেছেন তারই এক ভক্ত মো. রাশেদুল ইসলাম (রাশেদ খান)। সম্প্রতি আনুষ্ঠানিকভাবে এ রিসোর্টের উদ্বোধন করা হয়। এই রিসোর্টেই স্থাপন করা হয় ফাইবার দিয়ে নির্মিত সালমান শাহর একটি ভাস্কর্যও। এটি তৈরি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার শিক্ষার্থী পলাশ।

বিষয়টি নিয়ে শাহরান চৌধুরী ফেসবুক লাইভে বলেন, ‘আপনি যদি সালমান শাহকে সত্যি ভালোবাসেন, তাহলে নিশ্চয়ই চাইবেন না তার কোনো ক্ষতি হোক, আপনার ভালোবাসার মানুষ কষ্ট পাক। ইসলাম কি আপনাকে অনুমতি দেয় যে একজন মৃত মানুষের ভাস্কর্য বানালেন? রিসোর্ট বানান, এটা আপনার ব্যক্তিগত বিষয়। একজন মৃত মানুষের ভাস্কর্য বানিয়ে স্মরণ করে রাখতে হবে কেন? তিনি আপনাদের বিনোদিত করেছেন, আর চাই না বিনোদন। যদি পারেন ভাস্কর্যটা নামাবেন।’

যদিও ‘স্বপ্নের ঠিকানা’ রিসোর্টের কর্ণধার রাশেদ খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি অনেক চেষ্টা করেছি সালমান শাহর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার, অনুমতি নেওয়ার। কিন্তু তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারিনি। ২০১৯ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি স্বপ্নের ঠিকানা রিসোর্টের কাজের উদ্বোধন করা হয়। তখন থেকে আজ পর্যন্ত অনেক আলোচনা, অনেক নিউজ হয়েছে সালমান শাহ স্বপ্নের ঠিকানার পক্ষে। কিন্তু একবারও তার পরিবারের কেউ কিছু বলেননি। এখানে নিজের টাকা খরচ করে প্রিয় মানুষ সালমান শাহর জন্য মিলাদের আয়োজন করেছি, অনেক মানুষ একসঙ্গে দোয়া করেছি।’

রাশেদ খান আরো বলেন, ‘আমি সম্পূর্ণ ভালোবাসা থেকে এ রিসোর্টটি বানিয়েছি। ভাস্কর্যটিও সেই অনুভূতি থেকে করেছি। এখানে বাণিজ্যের কিছু নেই। এখন ওনার পরিবারের যদি ভাস্কর্যটি নামিয়ে ফেলতে বলেন, তাহলে তো সবার আগে তার যত সিনেমা, নাটক, মিউজিক ভিডিও আছে, সেগুলোর প্রচার-প্রচারণা বন্ধ করা উচিত। তারা যদি এভাবে বাধা দেন, তাহলে তো কোনো ভক্ত সালমান শাহকে নিয়ে কিছু করতে চাইবে না। এরপরও প্রয়োজনে ভাস্কর্যটা সরিয়ে ফেলব।’

এ বিষয়ে সালমান শাহর মামা আলমগীর কুমকুমের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এই প্রতিবেদক। আলমগীর কুমকুম বলেন, ‘মূর্তিটি সালমান শাহর পরিবারের অনুমতি ছাড়া তৈরি করা হয়েছে। আর একজন মুসলমানের মূর্তি তৈরির অনুমতি নেই। এজন্য এ বিষয়ে আপত্তি জানানো হয়েছে।’

-রাইজিংবিডি

শেয়ার করুন