সিলেটে পাঁচ দিনব্যাপী কম্পিউটার মেলা শুরু

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ॥ সিলেটে পাঁচ দিনব্যাপী ‘ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপো-২০২০’ শুরু হয়েছে। ‘তারুণ্য আর প্রযুক্তি, সম্ভাবনাময় ডিজিটাল সিলেটের শক্তি’ প্রতিপাদ্যকে সামনে এ মেলার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি সিলেট শাখা। সিলেট জেলা স্টেডিয়ামের মোহাম্মদ আলী জিমনেসিয়ামে বুধবার বিকেল থেকে শুরু হওয়া এ মো চলবে আগামী ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত।

বুধবার মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, ‘বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে মেধার বিকল্প নেই। আর সেই মেধাকে বিকশিত করতে হলে আমাদের তরুণ শিক্ষিত সমাজকে তথ্য প্রযুক্তির সাথে আরো সম্পৃক্ত করতে হবে। এভাবেই দেশকে একটা উন্নয়নশীল দেশে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যে চিন্তা করেছিলেন তা বাস্তব প্রতিপ্রলন হচ্ছে। আমাদের যাত্রা এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে বিস্ময়কর দেশ। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এখন বাংলাদেশের এই অতি অল্প সময়ের যে উন্নতি তা বিশ্বে প্রকাশ করেছেন বিশ্বের রাষ্ট্র নায়করা। তাই একমাত্র সম্ভব্য হয়েছে আমরা ডিজিটাল হতে পেরেছি।’

বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি সিলেটের চেয়ারম্যান এনামূল কুদ্দুছ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ‘ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপো (কম্পিউটার মেলা)-২০২০’ এর আহ্বায়ক মুজিবুর রহমান।

সমিতির সেক্রেটারী এএসএমজি কিবরিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, মহানগরের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সহসভাপতি তাহমিন আহমদ, গ্রামীণফোন সিলেট সার্কেলের বিজসেন হেড এএসএম হেদায়াতুল হক, ওয়ালটন গ্র“পের সিনিয়র ডেপুটি ডিরেক্টর মেহেদী হাসান, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির কেন্দ্রীয় মহাসচিব মোশাররফ হোসেন সুমন প্রমুখ।

শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সমিতির সদস্য আহমদ মাসুদ হায়দার জালালাবাদী। এর আগে সকাল ১১টায় মেলা প্রাঙ্গন থেকে প্রচার শোভাযাত্রা সিলেটের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্টেডিয়ামে গিয়ে শেষ হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সমিতির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ বিন আব্দুর রশিদ, জয়েন্ট সেক্রেটারী তারেক হাসান, কোষাধ্যক্ষ পার্থ চৌধুরী প্রমুখ।

আয়োজকরা জানান, পাঁচ দিনব্যাপী এ মেলায় স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৫০টি। এছাড়া দেশে তৈরি অত্যাধুনিক সব আইসিটি পণ্য ও সেবার প্রদর্শনী করবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।  এক্সপোতে বেশ কয়েকটি সেমিনার এবং সেশনের মাধ্যমে গত দশ বছরে ডিজিটাল বাংলাদেশের সাফল্য তুলে ধরা হবে।

মেলার প্রথম দিন সবার জন্য প্রবেশ উন্মোক্ত থাকলেও আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) থেকে সাধারণ দর্শনার্থী প্রত্যেককে প্রবেশ করতে হবে ১০ টাকা মূল্যের টিকেট কেটে। তবে শিক্ষার্থীরা আইডি কার্ড প্রদর্শনসাপেক্ষে প্রবেশ করতে পারবেন বিনা টিকেটে।

বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সিলেট শাখার কোষাধ্যক্ষ জানান, প্রতিদিন ১১টা থেকে শুরু হয়ে রাত ৯টা পর্যন্ত চলবে মেলা। পাঁচ দিনব্যাপী মেলায় প্রতিদিনই থাকছে নানা অনুষ্ঠান। সূচি অনুযায়ী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, অঙ্কন প্রতিযোগিতা, পর্যটন খাতে আইসিটি নিয়ে সেমিনার, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য আইসিটি সম্পর্কিত সেমিনার এবং শেষ দিন রাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হবে।

আয়োজকরা জানান, আগামী শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় ডিজিটাল এক্সপোতে ‘পর্যটন শিল্পে তথ্য প্রযুক্তি’ এবং আগামী শনিবার বিকাল ৪টায় ‘তথ্য প্রযুক্তিতে মহিলা উদ্যোক্তা’ শীর্ষক সেমিনার হবে। এছাড়া শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় শিশুদের নিয়ে হবে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা।

আয়োজকরা আরো জানিয়েছেন, আয়োজিত মেলার খরচ শেষে উদৃত  টাকা দিয়ে সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রযুক্তিপণ্য যেমন- ডেস্কটপ ও ল্যাপটপ কম্পিউটার, প্রজেক্টর, মডেম, ওয়াফাই রাউটার ইত্যাদি ফ্রি বিতরণ করা হবে।

শেয়ার করুন