লন্ডনের স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেক টোরি মন্ত্রী অধ্যাপক ররি স্টুয়ার্ড-এর ইশতেহার ঘোষণা

সমস্যা সমাধানে বাস্তবভিত্তিক ও ত্বরিৎ ব্যবস্থার অঙ্গীকার : অপরাধ কমাতে না পারলে দু’বছরের মধ্যে পদত্যাগ !

লন্ডনের স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেক টোরি
মন্ত্রী অধ্যাপক ররি স্টুয়ার্ড

সাজু আহমেদ, লন্ডন থেকে : লন্ডনের অপরাধ, বাসস্থান ও যোগাযোগ ব্যবস্থার বাস্তব ও ত্বরিৎ সমাধানের অঙ্গীকার নিয়ে আগামী মেয়র নির্বাচনে জন্য নিজের বাস্তবমুখী নির্বাচনী ইশতেহার তুলে ধরেছেন লন্ডনের স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী কনজারভেটিভ পার্টির সাবেক মন্ত্রী ও এমপি অধ্যাপক ররি স্টুয়ার্ড।
অক্সফোর্ড ডিগ্রিধারী, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ণকালীন সাবেক অধ্যাপক, টোরি পার্টির সাবেক দলনেতা পদপ্রার্থী ররি লন্ডনে রেকর্ড পরিমাণ তরুণদের ছুরিকাহত হওয়া, রাস্তা-ঘাটে পুলিশের অনুপস্থিতির বিষয়টি তুলে ধরেন। এর সমাধানে পুলিশের সংখ্যা বৃদ্ধি, যথাসময়ে রাস্তাঘাটে পোশাকধারী পুলিশের উপস্থিতি, মাঠ পুলিশের সহযোগিতার জন্য বিশেষ টিম, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতার মাধ্যমে জেলফেরত অপরাধীদের সংশোধন পরিকল্পনার বিষয়টি তুলে ধরেন। তা না পারলে দুবছরের মধ্যে পদত্যাগ করবেন বলেও জানান তিনি।
বাসস্থানের সমস্যা সমাধানে প্রাইভেট হাউজিং কোম্পানির পরিবর্তে কাউন্সিলের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও ভূগর্ভস্থ ট্রেনের সিগনালিংসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কথা বলেন তিনি। তার মতে, লন্ডন মেয়র তার জন্য বরাদ্দকৃত ১৭ বিলিয়ন পাউন্ড দিয়ে অনেক কিছু করতে পারতেন-যদি বাস্তবভিত্তিক ব্যবস্থা নিতেন। এক্ষেত্রে লন্ডন মেয়র ব্যর্থ হযেছেন বলে তিনি দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকবৃন্দ

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনার সময় ১৪ বিলিয়ন পাউন্ডের প্রজেক্টে কাজ করা, আফগানিস্তান, ইরান, ইরাক, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতার কারণে তিনি মনে করেন নিউইয়র্ক, গ্লাসগো, ইয়র্ক সহ অন্যান্য সিটির মতো লন্ডনের সমস্যা সমাধানে তিনি বাস্তবধর্মী ব্যবস্থা তিনি নিতে পারবেন।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তার জন্য ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবী বর্তমানে কাজ করছেন এবং তা মার্চে ৩০ হাজারে উন্নীত হবে। এই সময়ের মধ্যে তিনি লন্ডনের সব জনগণের মধ্যে তার বার্তা পৌঁছে দিতে পারবেন।

শেয়ার করুন