মুক্তিযুদ্ধের সকল ঐতিহাসিক স্থান সংরক্ষণ করা হচ্ছে: মৌলভীবাজারে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসায় অবহেলা না করতে ডাক্তারদের সতর্ক করলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। গতকাল শনিবার দুপুরে মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন মৌলভীবাজার সদর, কুলাউড়া, কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন শেষে সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ নির্দেশ দেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘মুজিববর্ষে প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধার বক্তব্য ১০ থেকে ২০ মিনিট রেকর্ড করা হবে। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ৯ মাস কিভাবে একজন মুক্তিযোদ্ধা যুদ্ধ করেছে তার বর্ণনা থাকবে রেকর্ডে। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের সকল ঐতিহাসিক স্থান সংরক্ষণ করা হচ্ছে, যাতে শত শত বছর পরেও পরবর্তী প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারে।’
তিনি সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা’র তীব্র সমালোচনা করে বলেন, ‘সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা বিচার বিভাগের চেয়ারটা কলুষিত করেছে। সে জিয়াউর রহমান ও বঙ্গবন্ধু হত্যার পরিকল্পনাকারী। তাকে এদেশে আনা হবে।’ তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের নামে প্রতিটি এলাকায় একটি রাস্তা করারও আশ্বাস দেন।
ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মল্লিকা দের সভাপতিত্বে এ সময় বক্তব্য রাখেন, মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহিদ, মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, মৌলভীবাজার-হবিগঞ্জ আসনের সংরক্ষিত মহিলা এমপি সৈয়দা জহোরা আলাউদ্দিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান ও সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কামান্ডার জামাল উদ্দিন প্রমুখ। এছাড়াও জেলার মুক্তিযোদ্ধা ও বিভিন্ন স্তরের সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ প্রকল্প হতে প্রায় ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে এই ৪টি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়।

শেয়ার করুন