বাল্য বিবাহ ও মাধ্যমিকে ঝরে পড়ার হার সিলেটে সবচেয়ে বেশী

সিলেটে মতবিনিময় সভায় রাশেদা কে চৌধুরী

বক্তব্য রাখছেন রাশেদা কে চৌধুরী

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ॥ তত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী বলেছেন, বর্তমান সমাজে শিশুর প্রতি সহিংসতার পাশাপাশি মূল্যবোধের অবক্ষয় বাড়ছে। এ থেকে উত্তরণে সাংবাদিকসহ সমাজের সকল শ্রেণী পেশার মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।
রবিবার সিলেটে “মেয়ে শিশু ও কিশোরিদের বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ ও ক্ষমতায়ন” বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। গণসাক্ষরতা অভিযান (ক্যাম্প) ও ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট এফেয়ার্স (আইডিয়া)’র যৌথ উদ্যোগে এ মতবিনিময়ের আয়োজন করে। উপশহরস্থ আইডিয়া অফিসে আয়োজিত সভায় সঞ্চালক ছিলেন আইডয়া’র নির্বাহী পরিচালক নজমুল হক।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণসাক্ষরতার অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী বেনবেইসের ২০১৮ সালের তথ্য দিয়ে বলেন, সারাদেশে মাধ্যমিক শতকরা ৩৮ ভাগ শিশু ঝরে পড়ার শিকার হচ্ছে। এর একটি বড় অংশ বাল্য বিবাহের শিকার। প্রসঙ্গক্রমে তিনি বলেন, বাল্য বিবাহ ও মাধ্যমিক শিক্ষা থেকে মেয়ে শিশুদের ঝরে পড়ার হার সিলেটে সবচেয়ে বেশী। এই হার কমাতে অভিভাবকদের সচেতন করে তুলতে হবে। পাশাপাশি সরকারকে মেয়েদের নিরাপত্তা বিধানের বিষয়টি কঠোরভাবে নিশ্চিত করতে হবে। তিনি ইভটিজিং বন্ধে স্থানীয় সিভিল ও পুলিশ প্রশাসনকে আরো সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান।
সভায় সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী বলেন, প্রান্তিক এলাকায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্থানীয় ইউপি মেম্বার, চেয়ারম্যান ও এলাকাবাসীদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করতে হবে।
সভায় সাংবাদিকদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সাংবাদিক কামকামুর রাজ্জাক রুনু, আবদুল কাদের তাপাদার, মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, উজ্জ্বল মেহেদী, এম এ হান্নান, এম আহমদ আলী ও শেখ আশরাফুল আলম নাসির প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন সিন্টু রঞ্জন চন্দ, ,ইয়াহিয়া ফজল আইডিয়া’র প্রোগ্রাম এসিসটেন্ট নাসরিন আক্তর নীলা, কংকন কান্তি দাশ, আখিঁ চৌধুরী, সালমা বেগম, তামান্না আহমদ প্রমুখ।

শেয়ার করুন