বিশ্বনাথে মানব পাচার মামলার বাদীতে অস্ত্র ফাঁসানোর চেষ্টা!

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: মানব পাচার মামলার বাদীকে অস্ত্র দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টার অভিযোগে থানায় দায়েরকৃত মামলায় সিলেটের বিশ্বনাথ সরকারি কলেজ ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম জুনেদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার নওধার গ্রামের মৃত আলকাছ আলীর ছেলে। সোমবার রাতে নিজ বাড়ি থেকে জুনেদকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

জানা যায়, উপজেলার নওধার (মাঝপাড়া) গ্রামের ইলিয়াস আলীর পুত্র রেজাউল ইসলাম রাজু বাদী হয়ে একই এলাকার কাঠলীপাড়া গ্রামের মৃত চমক আলীর পুত্র রফিকুল ইসলাম সহ ৫ জনের নাম উল্লেখ ও ১০/১১ জনকে অজ্ঞাতনামা অভিযুক্ত রেখে চলতি বছরের ১৬ মে মানব পাচার প্রতিরোধ দমন আইন-২০১২ এ মামলা দায়ের করেন। এ মামলা দায়েরের পর থেকে অভিযুক্ত রফিকুল ইসলামসহ আসামিরা বাদী (রাজু) ও তার পরিবার সদস্যদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করাসহ প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় দুই লাখ টাকা চুক্তিতে অস্ত্র দিয়ে মামলার বাদী রেজাউল ইসলাম রাজুকে ফাঁসানোর চেষ্টা করেন রফিকুল ইসলাম। এঘটনায় গত ২৮ নভেম্বর মানব পাচারকারী রফিকুল ইসলামকে প্রধান করে ৫ জনের নাম উল্লেখ ও আর ৪/৫ জনকে অজ্ঞাতনামা অভিযুক্ত করে থানায় মামলা দায়ের করেন রেজাউল ইসলাম রাজু। মামলা নং ২১।

এ মামলা দায়েরের আগের দিন রাতে (২৭ নভেম্বর) অভিযুক্ত উপজেলার রাজনগর গ্রামের মৃত আত্তর আলীর পুত্র আবদুল কাদির, রামপাশা (কোনাপাড়া) গ্রামের মৃত আবদুল মানিকের পুত্র আলী হায়দার মহুরী ও বিশ্বনাথ নতুন বাজার এলাকার বাসিন্দা আসু মিয়ার পুত্র আবুল কালামকে আটক করে পুলিশ। সোমবার রাতে মামলার অজ্ঞাতনামা আসামী জুনেদকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

শেয়ার করুন