‘আত্মপ্রচারকারীদের’ ভীড়ে ব্যতিক্রম জগলু চৌধুরী!

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: ‘আত্মপ্রচারকারী’ নেতাদের ভীড়ের মাঝে ব্যতিক্রম একজন হচ্ছেন জগলু চৌধুরী। তার পুরো নাম আখতারুজ্জামান চৌধুরী জগলু। তিনি সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক। একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবীদ হিসেবেও তার খ্যাতি রয়েছে সিলেটজুড়ে।

সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ঘিরে সকল নেতাকর্মী যখন ব্যানার-ফেস্টুন আর বিলবোর্ডের ‘আত্মপ্রচারে’ ব্যস্ত। তখনও জগলু চৌধুরী ভুলেননি দলের প্রয়াত নেতাদের। নিজে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হলেও তিনি প্রয়াত নেতাদের স্মরণ করেই টানিয়েছেন ফ্যাস্টুন। যেখানে তার কোন ছবি নেই। শুধু ছোট করে নিচে নাম লেখা রয়েছে। এ কারণে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের প্রশংসায় ভাসছেন তিনি ।

আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের পাশে বড় বড় ব্যানার-ফেস্টুনের ভিড়ে সাদাকালো ছোট আকারের ‘তুমি রবে নীরবে হৃদয়ে মম’- শিরোনামে  ফেস্টুনে প্রয়াত সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ, প্রয়াত আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য দেওয়ান ফরিদ গাজী, প্রয়াত জাতীয় সংসদের স্পিকার হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী, প্রয়াত আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, প্রয়াত সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এম এস কিবরিয়ার ছবি টানিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে জগলু চৌধুরী বলেন,  আওয়ামী লীগের অর্জনের বিশাল ইতিহাস রয়েছে। এটি গণমানুষের সংগঠন, এখানে আত্মপ্রচারের সুযোগ নেই। সরকারের উন্নয়নকে মানুষের সামনে প্রচার করতে হবে। আত্মপ্রচার না করে যাদের জন্য আজকের আওয়ামী লীগ, তাদের স্মরণ করতে হবে।মূলত রাজনীতিতে পচনশীল নেতৃত্বের কারণে এখন সবাই আত্মপ্রচারে ব্যস্ত। এ অবস্থা বিরাজমান থাকলে রাজনীতিতে ভালো মানের নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে না, নেতৃত্ব আরো পচনশীল হবে, যা কাম্য নয় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এদিকে জগলু চৌধুরী ছাড়াও  হবিগঞ্জের সাবেক সংসদ সদস্য ইসমত আহমদ চৌধুরীর মেয়ে ডা. নাজরা চৌধুরী এবং স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত পুরকায়স্তও এমনি বিলবোর্ড সাটিয়েছেন। তবে সুব্রত পুরকায়স্ত বিলবোর্ডে নিজের এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আফসর উদ্দিনের ছবিও ছাপিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

আরও পড়ুন- সিলেট আ.লীগের সম্মেলন: নৈাকার আদলে মঞ্চ প্রস্তুত

শেয়ার করুন