সৈয়দানীবাগের সৈয়দ বংশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ

সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ২৪নং ওয়ার্ডের সৈয়দানীবাগের সৈয়দ বংশের বিরুদ্ধে বিভিন্নভাবে একটি মহল অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। মূলত তারা সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যেই এমন অপপ্রচার করছে। বৃহস্পতিবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এমনটি দাবি করেছেন সৈয়দ সমরুল হোসেন সমু। তিনি সৈয়দানীবাগের সৈয়দবাড়ীর বাসিন্দা।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সম্প্রতি স্থানীয় বাসিন্দা নয়নের স্ত্রী সাবিনা বেগম সংবাদ সম্মেলন করে তাদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ তুলেছেন তার কোন সত্যতা নেই। এমনকি তাদের কোন পৈত্রিক জমিও সেখানে নেই। তারপরেও একটি কুচক্রি মহলের মদদেই সৈয়দবাড়ীর বিরুদ্ধে এমন অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। যা সম্পূর্ণ ভিত্তীহীন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘নয়নের স্ত্রী সাবিনা অভিযোগ করেন তার স্বামী প্রতিবেশীদের নির্যাতনের শিকার। মূলত, নয়ন একজন মাদকসেবী, তার বিরুদ্ধে চুরি, ছিনতাই, ধর্ষণ, লুটপাটের তিনচারটি মামলাও আছে। একটি মামলায় সে জেলও খেটেছে। সম্প্রতি নয়ন সৈয়দানীবাগ মসজিদের মোতাওয়াল্লি, সেক্রেটারিসহ স্থানীয় বিশিষ্টজনকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালসহ হুমকিও প্রদান করেছিল, যার কারণে মোতাওয়াল্লী থানায় মামলাও করেন।’

তিনি বলেন, ‘সাবিনা আরও বলেছিল নয়নের সাথে তার (সমু) ও সৈয়দ আফজলের জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। তা সত্য নয়। কেননা নয়নের কোনো পৈত্রিক সম্পত্তিই নেই। যে জমি নিয়ে বিরোধের কথা বলা হচ্ছে তা নয়নের পিতা আব্দুল হামিদ টুনু বেঁচে থাকা অবস্থায় তাদের কাছে বিক্রি করে গিয়েছিলেন। তবে বিক্রি করলেও তার পিতাকে ৪৯৫ নং দাগে থাকতে দিয়েছিলেন সৈয়দ হাবিবুর রহমান। এ কারণে জায়গা সম্পত্তি নিয়ে কোন বিরোধের প্রশ্নই নেই বলেও জানান তিনি। আর সৈয়দানীবাগের কোন জমিতে আদালতের স্থিতাবস্থাও নেই। স্বত্ব বাটোয়ারা মোকদ্দমা সংক্রান্ত বিরোধ আপসে নিস্পত্তি হওয়ায় স্বত্ব মামলা (নং-২২১/১৮) গত বছরের ২৬ অক্টোবর খারিজ হয়ে যায়।

তিনি বলেন, নয়নকে পুলিশে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর সৈয়দ তজিদুল হোসেন বাবুল আমাদের সম্মানহানী করার উদ্দেশ্যে তার স্ত্রীকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করায়। একই সাথে সৈয়দ তজিদুলের মেয়ে ফাহমিদাও রাস্তায় প্রকাশ্যে তাদের হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছেন। এ কাজে সিলেটের স্থানীয় একটি অনলাইন পোর্টালের সম্পাদকও এতে তাদের প্রত্যক্ষভাবে সহায়তা করছেন। তিনি সৈয়দ বংশের ৫শত বছরের পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষায় সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দ সাদেক হোসেন, বাদশা মিয়া, সৈয়দ বখতিয়ার হোসেন, সৈয়দ ফজিলত হোসেন, সৈয়দ আফজাল হোসেন, সৈয়দ তারেক হোসেন, সৈয়দ বায়েছ হোসেন, সৈয়দ নাহিদুর রহমান, আব্দুল্লাহ, মো. নজরুল মিয়া প্রমুখ।

শেয়ার করুন