সিলেটে চিরকুট রেখে পালালো দুই বান্ধবী, ঢাকা থেকে ফিরিয়ে আনলো পুলিশ

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: নগরীর একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীতে পড়েন রুনা ও রুমী (ছদ্মনাম)। দুই জনেরই বয়স ১৪। সমবয়সী এ দুই বান্ধবী বাসা থেকে পালিয়ে যান। চিরকুটে লিখে যান, তারা পারিবারিক শাসনের কারণেই ঘর ছাড়ছেন। তাদের নিয়ে যেন চিন্তা না করেন তাও লিখে যান তারা।

তবে বাসা থেকে পালানোর দুইদিনের মাথায় রাজধানীর তেজগাঁও থানার তেজতুরী বাজার থেকে তাদের ফিরিয়ে আনে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে তাদের সিলেট নিয়ে আসা হয়। পরে বুধবার তাদের দুজনকেই পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে জানান নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. জেদান আল মুসা।

তিনি জানান, ‘গত সোমবার সকালে স্কুলে যান ওই দুজন। এরপর স্কুল ছুটি হলেও তারা বাসায় ফেরেননি। সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখোজি করেও তাদের না পেয়ে অভিভাকরা কোতোয়ালি মডেল থানায় এসে সাধারণ ডায়েরি করেন। বিষয়টি থানার সহকারী পুলিশ কমিশনারকে অবহিত করা হলে তিনি নিজেই তদন্তে নামেন। এসময় তাদের বাসার রেখে যাওয়া চিরকুট দুটিও থানায় নিয়ে আসেন তিনি।’

‘পালিয়ে যাওয়ার সময় রুনা তার মোবাইল নিয়া গেলেও তা বন্ধ থাকার কারও সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয় নি। মঙ্গলবার তাদের এক বন্ধুকে কল করে। সেই বন্ধুকে খোঁজে বের করেন সহকারী পুুলিশ কমিশনার নির্মলেন্দু চক্রবর্তী। তাকে এনে তার মোবাইল কললিস্ট বের করে জানা যায় তারা দুজইন তেজগাঁও থানার তেজতুরী বাজার এলাকায় আছে। তারা বাড়ীতে আসার জন্য ৫টি শর্তও দেন।

এসময় সহকারী পুুলিশ কমিশনার নির্মলেন্দু চক্রবর্তী নিজেই উকিল রতন মজুমদার সেজে সব শর্ত পূরণ করার আশ্বাস দেন। তারা রাত নয়টার আসার কথা বললেও পরে আত্মগোপনে চলে যায়। ফের রাত ১০টার দিকে ১৪ হাজার টাকা বিকাশে পাঠানোর কথা বলে একটি নাম্বার প্রদান করে তাকে। বিকাশ নাম্বার পেয়েই তিনি বিকাশের এজেন্ট এর ঠিকানা সংগ্রহ করেন এবং তাদের টাকা আনতে পাঠান। পূর্ব থেকেই তেজগাঁও থানার পুলিশকে বিকাশ এজেন্টের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়। বিকাশের টাকা আনতে এজেন্টের কাছে যাওয়া মাত্রই ছাত্রী দুইজনকে আটক করে তেজগাঁও থানা পুলিশ থানায় নিয়ে রাখে।’

রাতেই কোতোয়ালী মডেল থানার এসআই (নিঃ) দেবাশীষ এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় অফিসার ও মহিলা ফোর্সসহ তেজগাঁও থানায় গিয়ে ওই দুই ছাত্রীকে সিলেটে ফেরত নিয়ে আসেন। পরে বুধবার তাদেরকে তাহাদের অভিভাকদের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে জানান অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. জেদান আল মুসা।

শেয়ার করুন