‘পোর্টসমাউথের সাথে সিলেটের বাণিজ্য সম্পর্ক বৃদ্ধির অপার সম্ভাবনা’

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: যুক্তরাজ্যের বন্দরনগরী পোর্টসাউথের সাথে বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় নগর সিলেটের বাণিজ্য সম্পর্ক বৃদ্ধির প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সফররত পোর্টসমাউথ সিটি কাউন্সিলের লিডার মিঃ জেরাল্ড ভ্যারনন-জ্যাকসন সিবিই। এক্ষেত্রে দুই দেশের ব্যবসায়ীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

রোববার বিকেলে নগরীর জেলরোডে সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির কনফারেন্স হলে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। তার নেতৃত্বে পোর্টসমাউথ সিটি কাউন্সিলের ২৮ সদস্যের প্রতিনিধিদল সিলেটে অবস্থান করছেন। তাদের সম্মানেই এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে সিলেট চেম্বার।

সিলেট চেম্বারের সভাপতি আবু তাহের মো. শোয়েবের সভাপতিত্বে তিনি আরও বলেন, ‘পোর্টসমাউথে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী বসবাস করেন, যাদের সিংহভাগই সিলেটী। তারা সেখানকার অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। আমরা বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক জোরদার করতে চাই বিশেষ করে সিলেট শহরের সাথে একটি সেতুবন্ধন সৃষ্টি করতে চাই। যার মাধ্যমে সিলেটের নাগরিকরা পোর্টসমাউথ সিটি হতে শিক্ষা, চিকিৎসা, বাণিজ্য সহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এলক্ষ্যে পোর্টসমাউথ সিটি কাউন্সিল সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাথে টুইন সিটি এগ্রিমেন্টও স্বাক্ষর করেছে।’

তিনি বলেন, পোর্টসমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ পোর্টসমাউথ শহরের বিভিন্ন বিখ্যাত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশের ছাত্র-ছাত্রীরা পড়াশুনার সুযোগ গ্রহণ করতে পারেন। তিনি সিলেট চেম্বারের পক্ষ থেকে প্রতিনিধিদলকে পোর্টসমাউথ সফরের আহবান জানান।
.
সভাপতির বক্তব্যে সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আবু তাহের মো. শোয়েব বলেন, ‘যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের উন্নয়ন অংশীদার রাষ্ট্র। বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনীতিতে যুক্তরাজ্যের অবদান ব্যাপক। তিনি পোর্টসমাউথ সিটি কাউন্সিলের প্রতিনিধিদলকে সিলেট সফরের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সিলেট বিনিয়োগের জন্য একটি আদর্শ স্থান। বিশেষ করে সিলেটে শিক্ষা, আইটি ও পর্যটন খাতে বিনিয়োগ প্রচুর সম্ভাবনাময়। তিনি সিলেটে যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় ও ট্রেনিং সেন্টার স্থাপনের জন্য দুইদেশের বিনিয়োগকারীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।’

সভায় বক্তব্য রাখেন পোর্টসমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউওপি গ্লোবাল শাখার পরিচালক ববি মেহতা, পোর্টসমাউথ বাংলাদেশ বিজনেস এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান রাজা আলী, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যলয়ের প্রফেসর ড. ইঞ্জিঃ এম. ইকবাল, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল সিলেট এর প্রধান মধুসূদন চন্দ, ইউকেবেট এর এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর এম. এ. সায়েম, সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি চন্দন সাহা, সহ সভাপতি তাহমিন আহমদ, প্রতিনিধিদলের সদস্য মাহবুব নূর ম্যাব্স।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট চেম্বারের পরিচালক পিন্টু চক্রবর্তী, এহতেশামুল হক চৌধুরী, মোঃ আতিক হোসেন, ওয়াহিদুজ্জামান চৌধুরী, খন্দকার ইসরার আহমদ রকী, বিবিসিসিআই এর রিজিওনাল ডাইরেক্টর মোঃ হিজকিল গুলজার, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক মোঃ জিয়াউর রহমান, প্রতিনিধিদলের সদস্য ড. স্টিফেন লাসালে, জেম্স ফরেল, লিউক রিস, জো হোল, জোনাথন উইলিয়াম্স, জোনাথন টার্নার, রবার্ট স্টুয়ার্ট, রেহিন চৌধুরী, সেলিনা আহমেদ আলী, রওশন রেজা, আকরাম হোসেন, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহিত চৌধুরী প্রমুখ।

শেয়ার করুন