ছাত্রলীগের হামলাকে ‘গণ-অভ্যুত্থান’ আখ্যা দিলেন জাবি ভিসির

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম। ছবি: টেলিভিশন থেকে নেওয়া

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: গতকাল (৪ নভেম্বর) থেকে দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের পদত্যাগের দাবিতে তার বাসভবন ঘেরাও করে রাখে। মঙ্গলবার দুপুরে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ উঠে। ছাত্রলীগ সেসময় অবরুদ্ধ উপাচার্যকে তার বাসভবন থেকে বের করে আনে।

বের হয়ে এসে উপাচার্য এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সেখানে তিনি আন্দোলনে অংশ নেওয়া শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে ‘উদ্ধার’ করায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ জানান। একইসঙ্গে হামলাটিকে ‘গণ-অভ্যুত্থান’ উল্লেখ করে নিজের অনুসারী শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

আরও পড়ুন-উপাচার্যবিরোধী আন্দোলনের মুখে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ জাবি, হল ত্যাগের নির্দেশ

এসময় তিনি বলেন, “আমার জন্যে এটা অত্যন্ত আনন্দের একটি দিন। এই কারণে যে… মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে যারপরনাই আমাকে অপদস্থ করা হয়েছে। অসম্মান করা হয়েছে। কিন্তু, কোনো প্রমাণ ছাড়াই। যদি প্রমাণ পায় তাহলে যা বিচার হবে আমি মেনে নিবো।”

ফারজানা ইসলাম বলেন, সংবাদমাধ্যমকে তারা অনবরত মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন। দেশে একটা জাগরণের সুযোগ এসেছে, আমরা সত্য কথা বলার সুযোগ পাব কি-না? আজ অবশ্য মানুষের জেগে ওঠা আমরা দেখেছি। আমার সহকর্মী কর্মকর্তা কর্মচারীসহ সব ছাত্রছাত্রী বিশেষ করে ছাত্রলীগের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। কারণ তারা দায়িত্ব নিয়ে কাজটি করেছেন। এখন সুষ্ঠুভাবে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার জন্য সবাই আমাকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবেন শুধু।

সংবাদ সম্মেলন শেষে জরুরি সিন্ডিকেট সভায় অংশ নেন উপাচার্য ফারজানা ইসলাম। সেখানের সিদ্ধান্তে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়। একইসঙ্গে বিকেলে সাড়ে ৫টার মধ্যে সব আবাসিক শিক্ষার্থীদের হল ছেড়ে যেতেও নির্দেশ আসে।

শেয়ার করুন