গাজীপুর থেকে অপহরণের পর সিলেটে এনে ধর্ষণ ॥ অপহৃত শিশু উদ্ধার, আটক ১

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: গাজীপুরের চান্দুরা চৌরাস্তা এলাকা থেকে দশ বছর বয়সী কন্যা শিশুকে অপহরণের পর সিলেটে এনে একাধিকবার ধর্ষণ করে অপরহণকারী। একই সাথে তাকে এক লাখ টাকায় বিক্রি করার চেষ্টাও করছিল। গত ৩১ অক্টোবর অপহরণ করে নিয়ে আসে তাকে। এসময় অপহৃত শিশুটির নানীর কাছে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণও দাবি করা হয়েছিল।

ঘটনার ১২দিন পর বুধবার ভোররাতে দক্ষিণ সুরমার নিশ্চিন্তপুর মোল্লাবাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। আটক করা হয় তাহির আলী (২০) নামে এক অপহরণকারীকেও। তিনি ওই গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে। প্রযুক্তি মাধ্যমে তাদের অবস্থান শনাক্তে পর এ অভিযান চালায় র‌্যাব।

র‌্যাব-০৯ এর সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করে উপ-অধিনায়ক মেজর শওকাতুল মোনায়েম জানান, ‘গত ৩১ অক্টোবর ভিকটিম (১০) ও তার নানি মার্কেট করার উদ্দেশ্যে চান্দুরা চৌরাস্তায় পৌঁছালে দুইজন অপরিচিত লোক তাদেরকে নাস্তা করার জন্য প্রস্তাব দেয় এবং ফুসলিয়ে পার্শ্ববর্তী হোটেলে নিয়ে যায়। সেখানে নাস্তার সাথে চেতনানাশক ঔষধ সেবন করিয়ে নানিকে অজ্ঞান করে নাতনিতে নিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় নানির মোবাইল ফোনটিও নিয়ে আসে তারা।’

‘নানির জ্ঞান ফেরার পর অনেক খোজাখুজির পর সন্ধান না পেয়ে তার নিজের হারিয়ে যাওয়া মোবাইলে ফোন করলে অপহরণকারী দলের সদস্যরা দুই লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। অন্যতায় অপহৃতকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এ বিষয়ে গত ৭ নভেম্বর নানি বাদী হয়ে গাজীপুরের বাসন থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন ( মামলা নং-০৯, তারিখঃ০৭/১১/১৯ খ্রিঃ)।’

পরবর্তীতে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব -৯ এর একটি বিশেষ দল অপরহণকারীর অবস্থান শনাক্ত করে অভিযান চালিয়ে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার এবং অপহরণকারীকে আটক করা হয় বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন