খোকার জানাজায় জনতার ঢল

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মুক্তিযোদ্ধা ও বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার দ্বিতীয় নামাজের জানাযা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জনাকীর্ণ রাজপথে অনুষ্ঠিত জানাযায় কর্মী-সমর্থকদের ভিড়ে যেন তিলধারণের ঠাঁই ছিল না। এর আগে বেলা ১১টার দিকে সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে প্রথম জানাজা এবং পরে শহীদ মিনারে সর্ব সাধারণের শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য রাখা হয় খোকার মরদেহ।

শহীদ মিনার থেকে দুপুর ১টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নিয়ে যাওয়া হয় দলের ভাইস চেয়ারম্যান খোকাকে। এসময় দলের নেতাকর্মীরা শেষ বারের মতো তাকে শ্রদ্ধা জানাতে জড়ো হন সেখানে।

সেখানে দলের মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আজকে গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য, দেশনেত্রীকে মুক্ত করার জন্য যখন সমস্ত মানুষ ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে তখন এই মানুষটাকে আমাদের খুব বেশি প্রয়োজন ছিল।’

অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র খোকার তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয় দক্ষিণ সিটি করপোরেশেন ভবনের সামনে। এরপর তার মরদেহ নেয়া হয় গোপীবাগে প্রিয় বাসভবনে।

বিকেলে ধুপখোলা মাঠে সবশেষ জানাজা শেষে জুরাইন কবরস্থানে নেয়া হয় সাদেক হোসেন খোকাকে। গার্ড অব অনার দেয়ার পর সেখানে শায়িত হন তিনি।

এরআগে সোমবার (৪ নভেম্বর) নিউইয়র্কে ইন্তকালের পর সেখানে একটি জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে সাদেক হোসেন খোকার মরদেহ ঢাকায় পৌঁছে।

এদিকে সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুতে তার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) তাদের অফিসে ছুটি ঘোষণা করে।

২০০২ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন সাদেক হোসেন খোকা।

শেয়ার করুন