প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে বললেন ড. কামাল

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে সরে গিয়ে পুনরায় নির্বাচন দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেন। পাশাপাশি তিনি বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিও করেছেন।

রোববার বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আয়োজনে বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যার বিচারের দাবি ও নাগরিক শোকর‌্যালি আগে সমাবেশে তিনি এ আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘বন্দুক দিয়ে লাখো শহীদের কণ্ঠ স্তব্ধ করতে পারবেন না। সময় থাকতে ক্ষমতা ছেড়ে দ্রুত সরে যান। পুনরায় নির্বাচন দিন।’

কামাল হোসেন বলেন, দেশের জনগণকে মত প্রকাশের স্বাধীনতা দিচ্ছে না। যে ঐক্যের প্রক্রিয়া চলছে তাতে জনগণের হাতে ক্ষমতা আসতে বাধ্য। সরকার যেভাবে সভা-সমাবেশে বাধা দিচ্ছে তা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল। এ সরকার যুবসমাজকে পশু বানাচ্ছে। এসব করে তারা পার পাবে না।

ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা বলেন, যে দল নিয়ে সরকার চলছে এবং যে কর্মকাণ্ড চলছে তাতে বঙ্গবন্ধুকে ছোট করা হচ্ছে। জোর করে সংবিধানপরিপন্থী প্রক্রিয়ায় সরকার টিকে আছে। সন্ত্রাসকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়া হচ্ছে।

আবরারকে যারা হত্যা করেছে তারা কার আদর্শের অনুসারী প্রশ্ন করে ড. কামাল বলেন, যিনি দেশ শাসন করছেন তার আদর্শের অনুসারী। এই কী আপনার আদর্শ? এই যদি আপনার আদর্শ হয়ে থাকে তাহলে আর এক মুহূর্তও আপনার সিংহাসনে থাকা উচিত না।

ড. কামাল বলেন, এই জনসভায় যারা আছেন সবাই বলছে আল্লাহর ওয়াস্তে আপনি দেশ শাসন করা থেকে সরে দাঁড়ান। নির্বাচন হোক। দেশ শাসন দেশের মানুষই করবে। সাধারণ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তারা ঠিক করবে কে দেশ শাসন করবে।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার সঞ্চালনায় ঐক্যফ্রন্ট দফতর প্রধান জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) প্রধান আ স ম আবদুর রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা জারফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন