যথাসময়ে যথাস্থানেই সমাবেশ হবে বলে জানালেন ডা. জাহিদ

রেজিস্টারি মাঠে স্থাপিত মঞ্চটি খুলে নেয়া হচ্ছে। ছবি: সিলেটের সকাল

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: দুর্নীতি মামলায় কারান্তরিণ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ যথাসময়ে যথাস্থানে হবে বলে জানিয়েছেন দলটির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন। এজন্য সমাবেশ হচ্ছে না বলে যে খবর ছড়িয়েছে তাতে নেতাকর্মীদের কোনো রকম বিভ্রান্তিতে না পড়ারও আহবান জানান তিনি।

সোমবার রাতে তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান। তিনি বলেন, সিলেট রেজিস্টারি মাঠে সমাবেশ করার জন্য ইতোমধ্যে সব রকমের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এ নিয়ে তিনি সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি) কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেছেন। এছাড়া দলের মহাসচিব ঢাকায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলেছেন। তাই দলের নেতাকর্মীদের বিভ্রান্তিতে না পড়ে সিলেট বিভাগের বিএনপির সব পর্যায়ের দলীয় নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের জনগণকে যথাসময়ে সমাবেশে যোগ দেওয়ার আহবান জানান।

এর আগে রাত ৯টার দিকে একটি খবর ছড়ায়, সিলেটে বিএনপির সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। সিলেট মহানগর পুলিশের একাধিক সূত্রও বিষয়টি নিশ্চিত করেছিল। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্র জানিয়েছিলো, বিএনপিকে রেজিস্টারি মাঠে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়নি। তবে তাদের ঘরোয়া প্রোগ্রাম আয়োজনের ক্ষেত্রে কোন বাধা দেয়া হবে বলেও সূত্রটি জানিয়েছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে সিলেটেরসকালসহ কয়েকটি অনলাইন নিউজপোর্টালে সংবাদও প্রচার হয়।

এদিকে সোমবার রাতে এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ ও মহানগর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম সিদ্দিকী বলেন, ‘রেজিস্টারি মাঠে বিএনপির সিলেট বিভাগীয় সমাবেশ নিয়ে বিভ্রান্ত হওয়ার অবকাশ নেই। আমাদের পূর্বঘোষিত সমাবেশ যথা সময়ে যথা স্থানে অনুষ্টিত হবে। সমাবেশ সফলে সরকারের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতারও আহ্বান জানান তারা।

অন্যদিকে সোমবার রাতে মহাসমাবেশস্থলে নির্মিত মঞ্চ সরিয়ে নেওয়া হয ।  ব্যানারও খুলে ফেলা হয়।  বিএনপির দাবি, পুলিশ ‘অন্যায়ভাবে’ সমাবেশের মঞ্চ-ব্যানার খুলে নিয়েছে।  তবে পুলিশ বলছে, খোলা মাঠে সমাবেশ করতে অনুমতির না থাকায় রেজিস্টারি মাঠ থেকে তাদের মঞ্চসহ সমাবেশের সব সরঞ্জাম সরিয়ে নিতে বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম মিয়া বলেন, ‘বিএনপি সমাবেশ করার জন্য অনুমতি নেয়নি।  তাই মাঠ থেকে তাদের মঞ্চসহ সব সরঞ্জাম সরিয়ে নিতে বলেছি।  তারা নিজেরাই এগুলো সরিয়ে নিয়েছে ।’

শেয়ার করুন