কোম্পানীগঞ্জে নিরাপদ সড়কের দাবিতে সহস্রাধিক জনতার মানববন্ধন

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি :: সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন সহস্রাধিক জনতা। সম্প্রতি কোম্পানীগঞ্জের ভোলাগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল ছাত্র ও পাথর ব্যবসায়ী নিহত হওয়ার পর এ দাবিতে তারা মানববন্ধন করেন। একই সাথে দোষী ট্রাকচালকদের বিচারও দাবি করেন তারা।

মঙ্গলবার ভোলাগঞ্জ বাজারে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধনের কারণে সিলেট -কোম্পানীগঞ্জ -ভোলাগঞ্জ বঙ্গবন্ধু জাতীয় মহাসড়কে দুপাশে ঘন্টাখানেক সময় যান চলাচল বন্ধ থাকে। ফলে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক ও শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সহস্রাধিক মানুষ এই মানববন্ধনে অংশ নেন। এ সময় তারা বেপরোয়া গাড়ি চালকদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করণ ও নিরাপদ সড়কের দাবি জানান। বক্তারা সিলেট -কোম্পানীগঞ্জ -ভোলাগঞ্জ বঙ্গবন্ধু জাতীয় মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ স্পটে গতিরোধক (স্পীড ব্রেকার) বসানোর দাবিও জানান।

নিহত স্কুল ছাত্রের বাবা মকদ্দুছ মিয়া বলেন, ‘আমার মতো কারও বাবা যেন অকালে সন্তান না হারায়।’ তিনি দোষী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি জানান।

উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান লাল মিয়ার সভাপতিত্বে ও পাথর ব্যবসায়ী জসিমুল ইসলাম আঙ্গুর মিয়ার পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- কোম্পানীগঞ্জ দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ দেলোয়ার হোসেন, কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি মইন উদ্দিন মিলন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবিদুর রহমান, যুবলীগ নেতা শাহ আলম, চুনাপাথর আমদানিকারক গ্রুপের সদস্য আখতারুজ্জামান নোমান, যুবনেতা শরীফ উদ্দিন, ভোলাগঞ্জ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হাজী আবুল বাশার, কুদরত উল্লার পরিবারের সদস্য হাফিজ মাওলানা হামিদুল হক, পূর্ব ধলাই স্টোন সাপ্লায়ার্স ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোঃ বশির উদ্দিন, কুদরত উল্লাহর বড় ভাই হাবিবুল্লাহ, ছোট ভাই আরমান উল্লাহ, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত স্কুল ছাত্রের পিতা মকদ্দুছ মিয়া, ভোলাগঞ্জ মাদ্রাসার শিক্ষক হাফিজ কামরুল হাসান, ইউপি সদস্য মুজিবুর রহমান, পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সদস্য হোসেন নুর, ভোলাগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অমল কান্তি, ভোলাগঞ্জ আদর্শগ্রাম বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আউয়াল, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল ওয়াহিদ, শিক্ষিকা শিফা বেগম, ব্যবসায়ী কাজী ফয়জুল হক, কোম্পানীগঞ্জ মানবাধিকার কমিশনের সহ সভাপতি জয়নুল আবেদীন জনি প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ভোলাগঞ্জে ট্রাকের চাপায় স্কুল ছাত্র আল আমিন নিহত হয়। সে ভোলাগঞ্জ বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র ছিল। এর আগে গত বৃহস্পতিবার ট্রাকচাপায় মারা যান ব্যবসায়ী কুদরত উল্যাহ (৪০)।সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ বঙ্গবন্ধু জাতীয় মহাসড়কের পাড়ুয়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। তিনি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার নাজিরেরগাঁও গ্রামের মৃত লিলু মিয়ার পুত্র।

শেয়ার করুন