কানাইঘাটে ইউনিভার ডিস্ট্রিবিউশনে চুরি, প্রযুক্তির সহায়তায় ধরা পড়লো তিন চোর

কানাইঘাট প্রতিনিধি :: সিলেটের কানাইঘাট পৌর শহরে অবস্থিত ‘ইউনিলিভার ড্রিস্ট্রিভিউশন’-এর অফিসে রাতের আধারে জানালার গ্রীল কেটে চুরির ঘটনার তিন চোরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে সনাক্তের পর গত ১২ সেপ্টেম্বর সিলেট শহরের টুকেরবাজার থেকে মামুন ওরফে মিজানকে (৩২) আটক করা হয়।

পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর দারুস সালাম থানার দিয়াবাড়ি এলাকা থেকে ফারুক হোসেন (৩৫) ও সিরাগঞ্জের বেলকুচি থেকে এনামুল হককে (১৮) গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া রোববার রাতে চুরির ঘটনায় ব্যবহৃত প্রাইভেট কারটি সিলেট নগরীর সানমুন হোটেলের পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়। একই সাথে আসামী মামুন ওরফে মিজানের বাসা থেকে লুন্ঠিত ৮ লক্ষ ৯১হাজার ৫৯৬ টাকার মধ্যে ১ লক্ষ টাকাও উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে কানাইঘাট থানায় সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান কানাইঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল করিম ও থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ‘গ্রেফতার এ তিন আসামী সিলেটের বিভিন্ন থানা এলাকায় বিভিন্ন দোকান, শো-রুম ও অফিসে দুস্কৃতিকারী চক্ররা রাতের বেলা অফিস ও বাসা বাড়ীর গ্রীল কেটে অভিনব পন্থায় ভিতরে ঢুকে মূল্যবান সামগ্রী সহ টাকা পয়সা চুরি করে থাকে।’

থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম জানান, গত ১ সেপ্টেম্বর ইরাম ট্রেডিং এর সত্ত্বাধীকারী এনামুল হক বাদি হয়ে কানাইঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-০২)। মামলা দায়েরের পর পুলিশ চোরচক্রকে গ্রেফতার করতে অভিযানে নামে। পরে প্রযুক্তির সহায়তায় তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের সোমবার আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। অধিকতর তথ্য উদ্ঘাটনের জন্য তাদের পুলিশ রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে ইউনিলিভার ডিস্ট্রিবিউশন সহ কানাইঘাটে দুঃসাহসিক চুরির মতো অপরাধ মূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এসে কানাইঘাটে এ ধরনের চুরির ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সচেতন মহল। এরপূর্বে থানার পাশের্^ অবস্থিত ৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে একই ভাবে চুরির ঘটনার সাথে জড়িত চক্রকে সুনামগঞ্জের বিশ^ম্ভরপুর ও মৌলভীবাজার থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছিল কানাইঘাট থানা পুলিশ।

শেয়ার করুন